ভোটের হাওয়ালালমনিরহাট-আসন ৩ ভোটযুদ্ধে এগিয়ে থাকতে হিসেব-নিকেশ কষছে বিএনপি

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
নতুন বছরের শুরুতেই, লালমনিরহাট-তিন আসনে সরগম নির্বাচনকেন্দ্রীক রাজনীতি। আগেইভাগেই মাঠে নেমেছেন কেন্দ্রের সবুজ সংকেতের অপেক্ষায় থাকা সম্ভাব্য প্রার্থীরা। হেভিওয়েট প্রার্থী থাকায় এ আসনেও লড়াই হবে তিন দলের। তবে দল নয় জনপ্রতিনিধি বাছাইয়ে ভোটারদের বিবেচনায় থাকবে প্রার্থীর অতীত কর্মকাণ্ড।
সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও এক পৌরসভা নিয়ে লালমনিরহাট-তিন আসন। জেলার প্রাণকেন্দ্র হওয়ায় স্থানীয় রাজনীতিতে আলাদা গুরুত্ব পাচ্ছে এ আসনটি।
১৯৯১ ও ৯৬ সালে বিএনপিকে হারিয়ে নির্বাচিত হন জাতীয় পার্টির প্রার্থী। পরের নির্বাচনে আসনটি দখলে নেয় বিএনপি। ২০০৮ সালে যেটি পুনরুদ্ধার করে জাতীয় পার্টি। আর সবশেষ নির্বাচনে জয় পান আওয়ামী লীগের প্রার্থী।
আগামী নির্বাচন ঘিরে আগেভাগেই মাঠে নেমেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। কেন্দ্রের সবুজ সংকেতের আশায় নেতাদের সঙ্গে বাড়াচ্ছেন যোগাযোগ। মহাজোটের প্রার্থী বিবেচনায় থাকলেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী আওয়ামী লীগ ও জাপা।
লালমনিরহাটের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আবু সালেহ বলেন, 'এখান থেকে মঙ্গা অনেক দূর, কিন্তু এখনও উন্নয়নের অনেক কিছু বাকি। তাই জনগণ এসব উন্নয়নে আমাকে চায়। আমি আশা করি প্রধানমন্ত্রী আমাকে সেই সুযোগ দেবেন।'
এদিকে, ভোটযুদ্ধে এগিয়ে থাকতে নানা হিসেব-নিকেশ বিএনপিতে। আগামী নির্বাচনে আসনটি নিজেদের করতে চায় দলের নেতারা।
লালমনিরহাট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বলেন, 'বিএনপি বিশেষ সঙ্গঠিত রবং আগামী দিনে যদি সুষু নির্বাচন হয়, তবে আমরাই নির্বাচিত হবো।'
শুধু রাজনৈতিক দল নয়, ভোটের ভাবনা শুরু হয়েছে সাধারণ মানুষের মাঝেও।
লালমনিরহাট-তিন আসনে মোট ভোটার প্রায় দুই লাখ ২৫ হাজার।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop