ksrm

খেলার সময়সুযোগ পেলে নিজেকে নতুন করে মেলে ধরতে চান মিরাজ, তাসকিন

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
আবারো জাতীয় দলের জার্সিতে ফিরছেন তারা। এই অনুভূতিটা বিশেষ। একাদশে সুযোগ মিললে নিদাহাস ট্রফিতে দারুণ কিছুই করে দেখাতে চান তাসকিন-মিরাজরা।
তবে, সবশেষ শ্রীলঙ্কা সফরের স্মৃতি পুঁজি করে নয়, নতুন করেই সাজাতে চান পরিকল্পনা। ভারত ও শ্রীলঙ্কার মতো দলের বিপক্ষে জিততে হলে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলার বিকল্প নেই, সেটাও ভালোই জানা এই দুই ক্রিকেটারের।
'একটা সিরিজে দলের বাইরে থাকার সময় একেকটা দিন মনে হয় অনেক বড়, লম্বা একটা সময়।' বলছিলেন তাসকিন।
জাতীয় দলের জার্সিটাই যে এমন। যতো পুরনোই হোক না কেনো, প্রত্যেক ক্রিকেটারের মননে চির রঙিন। এক সিরিজ পর আবারো টাইগারদের ড্রেসিংরুমে ফিরছেন পেসার তাসকিন। ফিরছেন একটা প্রতিজ্ঞা নিয়ে।
'চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ আসলে খুবই বাজে খেলেছিলাম। শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় সিরিজ যেহেতু, পেসের সঙ্গে লাইন-লেন্থ ঠিক রেখে আক্রমণাত্মক বোলিং করা এবং টিমের যে পরিকল্পনা থাকবে সে অনুযায়ী প্রয়োগ করার চেষ্টা করবো।'
শ্রীলঙ্কা সফরে টাইগারদের স্কোয়াডে ফিরেছেন মিরাজও। জাতীয় দলে বিশেষায়িত স্পিনারের তকমা সেঁটে গেছে এই অলরাউন্ডারের গায়ে। তবে, সুযোগ পেলে ব্যাটসম্যান মিরাজের দেখা মিলবে, এই প্রত্যয়ের কথা আবারো জানালেন তিনি।
'টি-২০'তে সেরকম সুযোগ পাওয়া যায় না। হয়তো পাঁচ বা দশ বল, আর ওইরকম সময়ে গিয়ে কিন্তু মারতে হয়। চেষ্টা করছি, দিনে দিনে ব্যাটিংটার উন্নতি করার জন্য।'
নিদাহাস টি-টোয়েন্টি ট্রফিতে প্রতিপক্ষ শক্তিশালী ভারত ও শ্রীলঙ্কা। ঘরের মাঠে লঙ্কানদের কাছে সিরিজ হারের পর এই সফরে চ্যালেঞ্জটা তাই একটু বেশিই। তবে, লড়াইয়ের রসদ গোছাচ্ছে দল। সবশেষ শ্রীলঙ্কা সফরের স্মৃতিতে আছে সুখানুভূতিও। সেই সিরিজেই হ্যাট্রিক করেছিলেন তাসকিন। তবে, নতুন সিরিজে ভাবনাটা নতুন।
তাসকিন বলেন, 'ওগুলো স্মৃতির পাতায়ই রয়ে গেছে। চেষ্টা করবো নতুন করে শুরু করতে। প্রত্যেকটা ম্যাচ, প্রত্যেকটা বলই আসলে নতুন করে করতে হয়।'
আর মিরাজ বলেন, 'টি-২০'তে সবসময় আক্রমণাত্মক থাকতে হয়। বিশেষ করে ব্যাটসম্যানরা আক্রমণাত্মক থাকে। বোলারদেরও আক্রমণাত্মক থাকতে হয়। যদি ম্যাচ খেলি তবে ভালো করার চেষ্টা থাকবে।'
ক্রিকেটারদের চ্যালেঞ্জ তো আছেই। তুলনা করলে টিম ম্যানেজমেন্টের চ্যালেঞ্জটা হয়তো আরো একটু বড়ই। ত্রিদেশীয় ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের অগোছালো ভাবটা কাটিয়ে উঠতে বিচক্ষণতার পরিচয় দিতে হবে নীতি নির্ধারকদের।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop