বিনোদনের সময়শ্রীদেবী মদ্যপান করতেন না, দাবি অমর সিংয়ের

বিনোদন সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
দুবাইয়ের হোটেলে কী করে চলে গেলেন শ্রীদেবী। তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে এ প্রশ্নই কুরে কুরে খেয়েছে তার আপামর ভক্তদের। সোমবার বিকাল নাগাদ প্রকাশিত হয় ফরেনসিক রিপোর্ট। জানা যায়, মদ্যপ অবস্থায় বাথটবে পড়েই মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর। যদিও সমাজবাদী পার্টির নেতা অমর সিংয়ের দাবি শ্রীদেবী মদ্যপান করতেন না।
শ্রীদেবীর মৃত্যু ঘিরে গোড়া থেকেই ধোঁয়াশা ছিল। প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হয়েছিল, ম্যাসিভ হার্ট অ্যাটাকের কারণেই তার মৃত্যু হয়। তবে বেশ কিছু প্রশ্ন ঘিরে ধরে চাঁদনির শেষযাত্রা। ফলে তা যতটা মসৃণ হওয়ার কথা ছিল, ততটা হতে পারেনি।
প্রথমত, স্বামী-মেয়ে ফিরে আসার পরও দুদিন দুবাইয়ের হোটেলে ছিলেন অভিনেত্রী। যদিও তিনি কী কারণে ছিলেন তা স্পষ্ট নয়। এদিকে শ্রীদেবীকে সারপ্রাইজ দিতেই নাকি ফের দুবাই যান বনি। স্ত্রীর সঙ্গে তার আধ ঘণ্টা কথাবার্তাও হয়। তারপরই স্নান করতে যান শ্রীদেবী। বেশ খানিকক্ষণ বাথরুম থেকে না বেরনোয় সন্দেহ হয় বনির। পরে অভিনেত্রীর সংজ্ঞাহীন দেহ উদ্ধার করা হয়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত বলে ঘোষণা করা হয় তাকে।
এরও বেশ কিছুক্ষণ পরে খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। কেন এত দেরি করে পুলিশকে খবর দেওয়া হল সে প্রশ্নও উঠছে। এই প্রশ্নের মধ্যেই মৃত্যুর কারণ নিয়েও ধোঁয়াশা দেখা দিচ্ছিল।
গতকাল সোমবার ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশিত হওয়ায় জানা যায়, পানিতে ডুবেই মৃত্যু হয়েছে অভিনেত্রীর। তার রক্তে অ্যালকোহলও পাওয়া গিয়েছে। অর্থাৎ মদ্যপ অবস্থাতেই বাথটবে পড়ে তার মৃত্যু। যদিও অমর সিংয়ের দাবি, শ্রীদেবী মদ্যপান করতেন না। আনুষ্ঠান ইত্যাদির ক্ষেত্রে ওয়াইন খেতেন বড়জোর।
তার এই দাবিতে ধোঁয়াশা আরও বেড়েছে। তাহলে অভিনেত্রীকে জোর করে কেউ মদ্যপান করিয়েছিলেন। যিনি জানতেন যে মদ্যপানের অভ্যাস না থাকায় বিপদে পড়তে পারতেন শ্রীদেবী। কিন্তু জেনেশুনে অভিনেত্রীকে কে বিপদের মুখে ঠেলে দিল? আর বাথটবে পড়ে গিয়ে উঠতেই বা পারলেন না কেন। ফরেনসিক রিপোর্ট প্রকাশ ও অমর সিংয়ের দাবিকে ঘিরে তাই নতুন ধোঁয়াশা।
এদিকে সোমবার ফের একদফা বনি কাপুরের সঙ্গে কথা বলল দুবাই পুলিশ। তদন্তভার দেওয়া হয়েছে দুবাইয়ের পাবলিক প্রসিকিউশনের উপর। স্থানীয় আইন মেনেই হবে তদন্ত। বনির বয়ান রেকর্ড করে পুরো ঘটনার পুনর্নিমাণও করা হতে পারে। শ্রীদেবীর মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত করে তবেই মরদেহ তুলে দেওয়ার পক্ষপাতী দুবাই প্রশাসন।
সূত্রঃ সংবাদপ্রতিদিন.ইন। 
 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop