ksrm

খেলার সময়বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের সংস্কার আর কত দূর?

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম সংস্কারের জন্য জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের দেয়া বাজেট শিগগিরই পাশ হবে। এমনটাই জানিয়েছেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বীরেন শিকদার। প্রত্যাশিত ৯১ কোটি টাকার বাজেটে বদলে যাবে স্টেডিয়ামের ভিতর-বাহির।
 
মাঠের মাটি পরিবর্তন, গ্যালারির ওপর ছাউনি, নতুন চেয়ার স্থাপন, অত্যাধুনিক জিমনেশিয়াম, ফ্লাড লাইট, প্রেস বক্স, ভিআইপি গ্যালারিসহ আমুল পরিবর্তন আসবে দেশের এই ঐতিহ্যবাহী স্টেডিয়ামে।
বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গন সম্পর্কে যাদের ন্যুনতম ধারণা রয়েছে তারা একনামে চিনবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামটিকে। ১৯৫৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এই স্টেডিয়ামে খেলে গেছেন লিওনেল মেসি, জিনেদিন জিদানের মতো ফুটবলাররা। ফুটবলের পাশাপাশি ৫৮টি ওডিআই ও ১৭টি টেস্ট ম্যাচ খেলা হয়েছে এখানে। কিন্তু কর্তৃপক্ষে উদাসীনতায় এখন জরাজীর্ণ এই মাঠ। ২০১১ ক্রিকেট বিশ্বকাপের পার আর কোন সংস্কার কাজ হয়নি এই মাঠে। শুধুমাত্র কোন ইভেন্ট থাকলে ঘষেমেজে দায় সারে কর্তৃপক্ষ।
জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অধীনে থাকা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামকে অত্যাধুনিক করার ইচ্ছে নাকি ছিল কর্তৃপক্ষের, আছে এখনো। তাইতো ক্রীড়া পরিষদ থেকে মন্ত্রণালয়ে একটি বাজেট পাঠানো হয়েছিল গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে।
কিন্তু আমলা তান্ত্রিক জটিলতায় এখনো বন্ধী সেই বাজেটের ফাইল। ৯১ কোটি টাকার এই বাজেট এখন আছে মন্ত্রণালয়ে। কবে নাগাদ তা মিলবে তা থেকে গেলো নানা প্রক্রিয়ার মাঝে।
জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মোঃ মাসুদ করিম বলেন, 'এটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সে কারণে আমরা একটা প্রকল্প প্রস্তাব তৈরি করে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। সেখান থেকে এটার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তারপরে এটি চূড়ান্ত করা হবে।'
ক্রীড়া পরিষদের কর্তারা না জানলেও, আশার বানী শুনালেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার। তার দপ্তর হয়ে ফাইল এখন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের অস্তিত্ব রক্ষা করতে শিগগিরই পরিষদের দেয়া বাটেজ পাশ হবে। এমনই আশাবাদ প্রতিমন্ত্রী।
তিনি বলেন, '৯১ কোটি টাকার একটা প্রকল্প আমরা হাতে নিয়েছি। সেটি আমাদের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে রয়েছে। আশা করছি দ্রুতই এটা অনুমোদিত হবে। এটা হলে আমরা বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামকে নতুন রূপে দেখতে পাবো।'
দেশের ক্রীড়াঙ্গনের নানান উত্থান পতনের সাক্ষী এই বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়াম। তরুণ প্রজন্মকে দেশের ক্রীড়াঙ্গনের ইতিহাস জানাতে হলেও টিকিয়ে রাখতে হবে এটিকে।'

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop