ksrm

খেলার সময়শোকের দিন, সৌভাগ্যের দিন

খেলার সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
সাকিব কেবল বাংলাদেশের নয়, বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তাঁর মতো একজন পরিপূর্ণ অলরাউন্ডার পেয়ে গর্বের শেষ নেই বাংলাদেশের। তবে সাকিবের আগে আরও একজন পরিপূর্ণ অলরাউন্ডার বাংলাদেশ পেয়েছিলো। তিনি হলেন-মানজারুল ইসলাম রানা। আজ (১৬ মার্চ) তাঁর মৃত্যুবার্ষিকী।
 
২০০৭ সালের আজকের দিন। খুলনায় স্থানীয় একটি খেলা শেষে আরেক ক্রিকেটার সাজ্জাদুল ইসলাম সেতুকে সঙ্গে নিয়ে নিজের মোটরসাইকেলে চাকনগরে দুপুরের খাবার খেতে যাচ্ছিলেন মানজারুল রানা। ডুমুরিয়া উপজেলার বালাইখালি ব্রিজে পৌঁছলেই ঘটে যায় বাংলাদেশ ক্রিকেটের 'সবচেয়ে' শোকাবহ ঘটনাটি। একটি অ্যাম্বুলেন্সের ধাক্কায় প্রাণ হারান দুর্দান্ত প্রতিভাবান ক্রিকেটার রানা। মাত্র ২৩ বছরের তরতাজা প্রাণটি ঝরে যাওয়ায় শোকের ছায়া নেমে আসে দেশের ক্রীড়াঙ্গনে।
ঘটনার পরের দিন ছিলো বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ, ভারতের বিপক্ষে। ড্রেসিংরুমে হঠাৎ অধিনায়ক হাবিবুল বাশারের ফোনে কল আসে। ফোন রিসিভ করার পরই কালো মেঘে ঢেকে যায় বাশারের মুখ। খবর শুনে শোকে ভেঙে পড়েন রানার বন্ধু মাশরাফিসহ দলের সবাই। ভারতের বিপক্ষে টাইগাররাই সেদিন খেলতে নামে রানার জন্য। ভারতকে ৫ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ।
২০০০ সালে প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে পা রাখা রানার জাতীয় দলের অভিষেক হয় ২০০৩ সালে, চিটাগংয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডেতে। আর শেষ ম্যাচটি খেলে ফেলেন মাত্র তিন বছরের মাথায় ২০০৬ সালে ফতুল্লায়। ছয়টি টেস্টে ২৫৭ রানের পাশাপাশি ৫টি উইকেট নিয়েছেন বাঁহাতি এ অলরাউন্ডার। ২৫ ওয়ানডেতে ব্যাট হাতে করেছেন ৩৩১ রান। বল হাতে নিয়েছেন ২৩টি উইকেট।
এই সংক্ষিপ্ত সময়ের পরিসংখ্যান দিয়ে হয়তো কিছুই বুঝা যাবে না। তবে আজ রানা থাকলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সাকিবের সঙ্গে হয়তো উচ্চারিত হতো তাঁর নামাটিও। আর ইনজুরিতে পড়া সাকিবের অনুপস্থিতি নিয়ে বাংলাদেশকে এতোটা ভুগতে হতো না।
রানার মৃত্যুবার্ষিকী একদিকে যেমন শোকের অন্যদিকে সৌভাগ্যেরও। এই দিনটিতে খেলতে নামলেই জ্বলে উঠেন টাইগারারা। শোককে শক্তিতে পরিণত করে ছিনিয়ে আনেন বিজয়।
২০১২ সালের এই ১৬ মার্চ ঢাকায় ছিলো এশিয়া কাপে বাংলাদেশের ম্যাচ। প্রতিপক্ষ ভারত। ম্যাচের আগের রাতে মাশরাফি সতীর্থদের বলেছিলেন, 'চল, রানার জন্য খেলি।' সেই ম্যাচেও জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। দুই বছর পর ২০১৪ সালে রানার মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে টি-২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশ হারায় আফগানিস্তানকে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের শততম টেস্ট শুরু হয়েছিলো গত বছর ১৫ মার্চ। রানার মৃত্যুবার্ষিকীর ঠিক আগের দিন। ঐতিহাসিক সেই টেস্টেও জয় পেয়েছিলো বাংলাদেশ।
বছর ঘুরে আবারও এসেছে রানার মৃত্যুবার্ষিকী। আর নিদাহাস ট্রফিতি অঘোষিত সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। শোককে শক্তিতে পরিণত করে দিনটিকে বরাবরের মতো আরও একটি জয় কি রানাকে উপহার দিতে পারবে না বাংলার টাইগাররা! উপর থেকে রানা হয়তো এটার অপেক্ষাতেই আছেন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop