ভোটের হাওয়াচুয়াডাঙ্গা-২ আসনে আ.লীগের ঘাঁটি, জায়গা দখলে মরিয়া বিএনপিও

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
একাদশ সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে চুয়াডাঙ্গা-দুই আসনে সক্রিয় হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক দলগুলো। দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে লবিং শুরু করেছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। গত দু'বারের মতো আগামী নির্বাচনেও জয় চায় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। নির্বাচনী মাঠে না থাকলেও আসন পুনরুদ্ধারে প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপিও।
দেশের অন্যতম সীমান্ত উপজেলা দামুড়হুদা ও জীবননগর উপজেলার দুই পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত চুয়াডাঙ্গা-২ আসন। ভোটের রাজনীতিতে এখানেও বরাবরই বিএনপি জোটের আধিপত্য।
১৯৯১ সালে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের হয়ে নির্বাচিত হন জামায়াত নেতা হাফিজুর রহমান। পরের দুই নির্বাচনে জয় পান বিএনপির মোজাম্মেল হক। ২০০৮ সালে আসনটি দখলে নেয় আওয়ামী লীগের আলী আজগর। সবশেষ নির্বাচনেও জয় পান তিনি।
এ অবস্থায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আসনটি নিজেদের করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে বড় দু'দলই। আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করলেও মাঠে নামেনি বিএনপি। তবে ভোটের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকতে ২০ দলীয় জোটের একক প্রার্থী নিয়ে মাঠে নামতে চান দলটির নেতারা। সরকারের উন্নয়নের কারণে জয় নিয়ে আশাবাদী আওয়ামী লীগ।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. গোলাম মোর্তেজা বলেন, 'মানুষ এখন উন্নয়ন দেখতে চাচ্ছে। এ কারণেই মানুষ নৌকা মার্কাকেই ভোট দেবে আমার এটাই বিশ্বাস।'
উপজেলা বিএনপি সভাপতি মোহাম্মদ আকতারুজ্জামান বলেন, 'সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আমরাই ভোটে এগিয়ে থাকবো। এর আগেও আমরা অন্য দলকে হারাতে পেরেছি, এবারো পারবো।'
ভোটাররা বলছেন, দলীয় প্রতীক নয় জনপ্রতিনিধি বাছাইয়ে প্রার্থীর অতীত কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি গুরুত্ব পাবে উন্নয়ন অঙ্গীকার। চুয়াডাঙ্গা-দুই আসনের মোট ভোটার চার লাখ ৫ হাজার।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop