ksrm

পশ্চিমবঙ্গভোটে জিতলে বিজেপির স্মার্টফোন উপহার

কলকাতা অফিস

fb tw
somoy
ভোটে জিতলে তরুণ প্রজন্মের হাতে স্মার্ট ফোন দেওয়ায় ঘোষণা দিয়ে তীব্র বির্তকের সৃষ্টি করেছেন তৃণমূল বিদায়ী বিজেপির শীর্ষ নেতা মুকুল রায়। এর আগে যদিও ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপি একই ভাবে এমন ঘোষণা করেছিল। তবে এবার পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনে প্রচারে গিয়ে বিজেপি এই ঘোষণা করেছে।
শনিবার (৫ মে)সন্ধ্যায় উত্তরবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার ঘুঘুডাঙায় নির্বাচনী সভা করেন মুকুল রায়। সেখানে তিনি তৃণমূল, কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের সমালোচনা করেন। এবং এক-পর্যায়ে তিনি নতুন ভোটারদের আকৃষ্ট করতে গিয়ে বলেন, "জলপাইগুড়িতে যদি জেলা পরিষদের বিজেপি জেতে। তবে আমরা জলপাইগুড়ির ১৮ বছরের বয়সের সবাইকে স্মার্টফোন দেওয়া হবে। কেননা, আমাদের প্রধানমন্ত্রীও চাইছেন ক্যাশ-লেস সংস্কৃতি গড়ে উঠুক"।
 
তৃণমূল কংগ্রেস অভিযোগ করে বলছে, নির্বাচনের নির্ঘণ্ট প্রকাশের পর এই ধরণের ঘোষণা দেওয়া আদর্শ আচরণ বিধি লংঘণের সামিল। মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ করা হয়েছে বলে জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূল সভাপতি নেতা সৌরভ চক্রবর্তী সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।
তৃণমূলে নেতা আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও এসে জলপাইগুড়িতে ডানকানের চা বাগানের অধিগ্রহণের প্রতিশ্রুতি করেছিলেন। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেওয়া বিজেপির সংস্কৃতি।
এদিকে শুধু যে প্রতিশ্রুতির বিষয়, তা নয়। পশ্চিমবঙ্গের প্রধান রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃত্ব চলমান পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রচার প্রচারণায় গিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বি দল ও ব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও ’ব্যক্তিগত’ আক্রমণ করছেন। এটাও নির্বাচনী আচরণ বিধি ভাঙার সামিল বলে মনে করা হচ্ছে।
 
৫ মে শনিবার উত্তর চব্বিশ পরগনার বসিরহাটের একটি নির্বাচনী সভায় দাঁড়িয়ে মমতা ব্যানার্জির ভাইপো, সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি বিজেপিকে ভাগার পার্টি বলে দাবি করেন। মুকুল রায়ের নাম না করে তরুণ তৃণমূল নেতা বলেন, তৃণমূল যেসব মালকে ভাগারে ফেলে দিয়েছিল। বিজেপি ভাগার থেকে তুলে নিয়ে জায়গা দিয়েছে। বিজেপি একটা ভাগার (ময়লা আবর্জনার স্তূপ) পার্টি।
বিজেপি সভাপতি দীলিপ ঘোষও শনিবার শিরোনামে ছিলেন হুমকিমুলক ভাষণ দিয়ে। তিনি এদিন বলেন, আমরা যেমন ৩৫ হাজার বুথে তৃণমূলের পুলিশ ও গুণ্ডাকে ঠেকিয়ে প্রার্থী দিয়েছি। ভোটের দিন আমরা এইভাবেই ঠেকিয়ে ভোটে জিতে আসবো।
 
ওদিকে বিজেপির শীর্ষ নেতা রাহুল সিনহা বিস্ফোরক অভিযোগ করে বলেছেন যে, ভোটে বিজেপির ৩৮ জন নেতাকর্মী নিখোঁজ রয়েছেন। খুন হয়েছেন ৭ জন নেতা-কর্মী। প্রায় তিন শতাধিক নেতা-কর্মী তৃণমূলের হামলার আহত হয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে বহু উদ্দেশ্যপ্রনদিত মামলা করা হয়েছে।
৬ মে রবিবার সকালে কলকাতায় বিজেপির সদর দফতরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ওই বিজেপি নেতার দাবি, মমতা ব্যানার্জি নিজেকে সবচেয়ে বড় মুসলিম বলে মনে করেন। যেখানে সুপ্রিম কোর্ট পরিষ্কারের নির্দেশনার প্রেক্ষিতেই গত নির্বাচন রমজান মাসেও হয়েছিল। সেখানে মমতা রমজান মাসের অজুহাত তুলে এক দিনে এক দফায় নির্বাচন করছে।
নির্বাচন কমিশন তৃণমূলের নির্দেশে চলছে বলে অভিযোগ করে রাহুল সিনহা বলেন, আদালত যদি অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বৈধতা প্রদান করেন তবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পাওয়া ২০ হাজার সিটের নির্বাচন হবে। কারণ এই সব জায়গায় তৃণমূল বিরোধী কোনও প্রার্থীকে তৃণমূল গুন্ডারা দাঁড়াতে দেয়নি।   
প্রসঙ্গত, নির্বাচনের নিরাপত্তা বিষয়ক একাধিক মামলায় এখনোও কোনও নিস্পস্তি হয়নি। মামলা চলছে কলকাতা হাইকোর্টের দুটি পৃথক বেঞ্চে।  
নির্বাচন কমিশনের নির্ঘণ্ট অনুযায়ী, ১৪ মে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে স্থানীয় সরকার অর্থাৎ পঞ্চায়েত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আর গণনা হবে ১৭ মে।
রাজ্যের শাসক তৃণমূল কংগ্রেস, প্রধান বিরোধী বিজেপি সহ বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসও এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছে।
 
 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop