ksrm

বাণিজ্য সময়দুই দশকেও পরিবর্তন আসেনি চামড়া শিল্পে বন্ড সুবিধা প্রদান

বাণিজ্য সময় ডেস্ক

fb tw
somoy
দীর্ঘ দুই দশকেও পরিবর্তন আসেনি চামড়া শিল্পে বন্ড সুবিধা প্রদান নিয়ে গড়ে ওঠা বৈষম্যমূলক সরকারি কর নীতির। সঙ্কট আরও বেড়েছে নতুন শিল্প নগরীতে অবকাঠামো নির্মাণে ৬ শতাংশ ভ্যাট প্রদানের বাধ্যবাধকতার কারণে। আসছে অর্থবছরের বাজেটেই যার প্রত্যাহার চেয়ে ট্যানারি মালিকদের দাবি, শিল্প স্থানান্তরের ধকল কাটাতে অন্তত: দশ বছরের জন্য দেয়া হোক কর অবকাশ সুবিধাও।
যদিও নির্মাণকাজের উপর আরোপিত ভ্যাট প্রত্যাহার হবে না উল্লেখ করে এনবিআর বলছে, সরকার আন্তরিক হলেও ট্যানারি মালিকদের একতার অভাবেই সমাধান হচ্ছে না অনেক সমস্যার।
রপ্তানিমুখী কোন শিল্পই এতোটা দুর্গম পথ পাড়ি দেয়নি যতোটা দিয়েছে দেশের চামড়া শিল্প। হাজারীবাগ অধ্যায় শেষ হয়েছে তাও বছর-খানেক, এমনকি অর্ধশতাধিক ট্যানারি তিনটি ধাপে চামড়া প্রক্রিয়াজাতকরণও শুরু করেছে সাভারে। কিন্তু আজও নির্মাণাধীন তকমা থেকে বের হতে পারেনি বহুল আলোচিত শিল্প-নগরীটি। ঠিক কবে নাগাদ পুরোপুরি শিল্প সহায়ক হয়ে উঠবে সাভার নিশ্চয়তা নেই তারও।
এর মধ্যেই রাজস্ব বোর্ডের ধার্য করা ৬ শতাংশ নির্মাণ করের কারণে আর এক দফা স্থবিরতা নেমেছে ট্যানারি অবকাঠামো তৈরিতে। সুরাহা হয়নি বন্ড সুবিধা নিয়ে তৈরি হওয়া বৈষম্যেরও। এখনও এ সুবিধায় শূন্য করে চামড়া রপ্তানি কিংবা রাসায়নিক আমদানি করছে মাত্র ৩০টি প্রতিষ্ঠান, ফলে ক্রমেই ক্ষোভ বাড়ছে এ সুবিধার বাইরে থাকা ট্যানারি মালিকদের।
মিনিকিন কেমিক্যালের চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম খান বলেন, যিনি ৩৫ শতাংশ থেকে শুরু ৬০ শতাংশ পর্যন্ত ভ্যাট দিয়ে কেমিক্যালস আমদানি করছেন তার ব্যয়। আর যিনি শূন্য শতাংশ কর দিয়ে কেমিক্যাল আমদানি করেন। এদের মধ্যে বিশাল পার্থক্য। আর এই বিষয়টি এনবিআর শুনেছেন কিন্তু প্রতিকার করেন নাই।

নির্মাণাধীনের জন্য ভ্যাট দিতে সাভার ভ্যাট অফিস আমাদেরকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছেন।  আমরা প্রস্তাব দিয়েছি, যাতে এই ভ্যাটটি প্রত্যাহার করা হয়। এর পাশাপাশি ৭ থেকে ১০ বছরের জন্য ট্যাক্স হলিডে সুবিধা চামড়া শিল্পে দেয়া হয়।
যদিও এসব সমস্যার পেছনে ট্যানারি মালিকদের-ই দায় দেখছে এনবিআর। সংস্থাটির আশ্বাস বন্ড পদ্ধতির সংস্কারের সঙ্গে সরকার পর্যালোচনা করবে কর অবকাশ সুবিধার বিষয়টিও তবে প্রত্যাহার হবে না নির্মাণ কর।
চামড়া শিল্পের যে কয়েকটি অ্যাসোসিয়েশন আছে, ঐক্যবদ্ধভাবে তারা কি চায় সেটি আমাদের কাছে তুলে ধরুক। কিন্তু নির্মাণাধীন ভ্যাট কোনভাবে মওকুফ করা হবে না।
এদিকে গেল এক বছরে কখনোই কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগারের সবগুলো মডিউল একসঙ্গে চালু করতে পারেনি বিসিক। বর্ষা আসার আগেই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে শিল্প-নগরীর রাস্তাঘাটও।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop