বাংলার সময়আসছে বন্যা, চিন্তিত শাহজাদপুরের গো-খামারিরা

রিংকু কুণ্ডু

fb tw
বন্যা ঘনিয়ে আসায় অনেকটা দুশ্চিন্তা রয়েছে দেশের অন্যতম দুগ্ধ উৎপাদনকারী এলাকা সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরের গো খামারিরা। এসময় কাঁচা ঘাস সমৃদ্ধ গো-চারণ বন্যার পানিতে তলিয়ে যায়। এতে গো-খাদ্যের সংকট দেখা দেয়ার পাশাপাশি শুকনো খাবার খাওয়ার কারণে কমে যায় দুধের উৎপাদন। এছাড়া দেখা দেয় বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ। তবে বন্যায় গো খাদ্য সংকট মোকাবিলা ও রোগ জীবাণু প্রতিরোধে আগাম প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
১৯৭৩ সালে সমবায় ভিত্তিক রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান মিল্কভিটার দুগ্ধ প্রক্রিয়াজাতকরণ কারাখানা সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে এখানে গড়ে ওঠে শত শত গরুর খামার। এখানকার গবাদি পশু সারা বছরই খামার সংলগ্ন গো-চারণ ভূমিতে রাখা হয়। কিন্তু বন্যায় করতোয়া নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করায় এখন থেকেই গবাদিপশু গুলোকে রাখা হচ্ছে খামারে। এ সময় সবুজ ঘাস পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় এসব এলাকায় দেখা দেয় গো-খাদ্যের সংকট। পাশাপাশি শুকনো খড় ও প্যাকেট জাত খাবার খাওয়ানোতে কমে যায় দুধের উৎপাদন। একদিকে গবাদিপশুর জন্য অতিরিক্ত খরচ হওয়া অন্যদিকে দুধের উৎপাদন কমে যাওয়ায় অনেকটা দুচিন্তায় রয়েছেন খামারিরা।
বন্যায় গবাদিপশুগুলোকে খামারে গাদাগাদি করে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখার কারণে দেখা দেয় আমাশয়, ডায়রিয়া, পেটেরপীড়াসহ বিভিন্ন পানি বাহিত রোগ। আর রোগ প্রতিরোধে কর্তৃপক্ষের খুব একটা সহযোগিতা পান না বলে অভিযোগ খামারিদের।
তবে বন্যায় গো-খাদ্যের ঘাটতি কমাতে মিল্কভিটার পক্ষ থেকে খামারিদেরকে সব ধরনের সহায়তা দেয়া হবে বলে জানায় মিল্ক ভিটা কর্তৃপক্ষ। বন্যার কারণে জেলার শাহজাদপুর উপজেলায় প্রায় ৫০ হাজার গবাদিপশু নিয়ে দুচিন্তায় রয়েছে প্রায় ৫ শতাধিক খামারি। 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop