পশ্চিমবঙ্গ১৯ জানুয়ারি বিজেপি বিরোধী মহাসমাবেশের ডাক মমতার

কলকাতা অফিস

fb tw
somoy
বিজেপি সরকারকে হঠাতে কলকাতায় ধর্মনিরপেক্ষ রাজনৈতিক শক্তি নিয়ে মহা-সমাবেশের ডাক দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল তৃণমূলের সভানেত্রী তথা রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। আগামী বছর ১৯ জানুয়ারি কলকাতার ব্রিগেড ময়দানের এ সভা করবে তৃণমূল কংগ্রেস।
শনিবার (২১ জুলাই) তৃণমূল যুব কংগ্রেসের ডাকে শহিদ সমাবেশে প্রধান বক্তা মমতা ব্যানার্জি বলেছেন, বিজেপি উগ্রপন্থা ও তালিবানী হিন্দুত্ববাদি কায়েম করছে। এই হিন্দুত্ববাদকে আমরা মানবো না।
মমতার ভাষায়, ‘ওরা তলোয়ার হিন্দু, বোমা হিন্দু, গুলি হিন্দু। দেশ-জুড়ে বিজেপির বিরুদ্ধে তালিবানী সন্ত্রাস চালানোর অভিযোগ তোলেন মমতা ব্যানার্জি।
দেশের মানুষকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি অটুট রাখতে তৃণমূল কংগ্রেস বদ্ধপরিকর বলেও দাবি করেন মমতা ব্যানার্জি।
মহাসমাবেশে উপস্থিত তৃণমূল কর্মীদের আগামী লোকসভা নির্বাচনের ৪২ টি আসনে তৃণমূল কংগ্রেস জয় নিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি করান মমতা। তিনি বলেন, ‘আগামী বছর যাতে বিজেপি রাজ্য থেকে শূন্য হয়ে যায়।’
আর শুধু রাজ্যে নয় বিজেপি উত্তরপ্রদেশ, বিহার, উড়িষ্যা, উত্তরাখণ্ড সহ ভারতে সব মিলিয়ে ১৫০র বেশি আসন পাবে না বলেও মমতা ভবিষ্যৎবাণী করেন।
তামিলনাড়ু–এর এইআইডিএমকে আস্থা ভোটে বিজেপিকে ভোট দিয়েছে বলে দাবি করে মমতা বলেন, ‘আগামীতে তামিলনাড়ু–তে একটা সিটও পাবে না এইআইডিএমকে। জয় ললিতা বেঁচে থাকলে বিজেপিকে ভোট দিতেন না। আগামীতে তামিলনাড়ু–তে ডিএমকের স্ট্যালিনরা বিজেপিকে খেয়ে নেবে বলেও মন্তব্য করেন মমতা ব্যানার্জি। একই ভাবে উত্তরপ্রদেশে মায়াবতী-মুলায়ম জোট হলে অনেক আসন কমে যাবে বিজেপির।
একই ভাবে বিহারের লালু এবং উড়িষ্যায় নিবন পট্টনায়করাই বিজেপিকে খেয়ে নেবেন বলেও মন্তব্য করেন মমতা ব্যানার্জি।
তৃণমূল কংগ্রেস নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে মমতা এই সভায় বলেন, ‘আর এস এস রাজ্যের বিভিন্ন থানা এলাকায় ভিনরাজ্যের লোক বসাচ্ছে। তারা দাঙ্গা করার ছক কষছে। টাকাও ঢালছে। কাউকে সন্দেহ হলে স্থানীয় থানায় খবর দিতে বলেছেন। দলীয় নেতা-কমীদের নজর রাখতে বলেছেন।’
সম্প্রতি মেদিনীপুরের মঞ্চ ভেঙে পড়ার ঘটনায় কটাক্ষ করে মমতা বলেন, দেখুন যারা একটা মঞ্চ ঠিক রাখতে পারেন না, তারা কি করে বাংলা সামলাবেন। আগামী ২৮ আগস্ট মেদিনীপুরের কলেজিয়েট মাঠে একইভাবে তৃণমূল একটি সমাবেশ করবে বলেও মমতা ঘোষণা করেন। বিজেপি রাজ্যের নেতাদের মুখের ভাষা নিয়েও কঠোর সমালোচনা করেন মমতা ব্যানার্জি।
মমতা ভাষায়, নিশ্চয় তাদের মা জন্মের পর সবার মধু দিয়েছিলেন। কিন্তু কি করা তারা পরবর্তীতে এই ধরণের অপদার্থ হিসেবে বেড়ে উঠেছেন। জিহ্বার জায়গা আল-জিহ্বা বেড়ে উঠেছে তাদের।
কলকাতায় প্রাণ কেন্দ্র ধর্মতলায় এই সমাবেশ হলেও কলকাতার প্রধান চারটি প্রবেশ পথেই তৃণমূল বিশেষ মঞ্চ গড়ে সেখানে জায়েন্ট স্ক্রিনে দলীয় নেত্রীর ভাষণ সম্প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়। মূল মঞ্চ ছাড়াও এদিন গোটা কলকাতায় তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জি দাবি করেছেন সভার বাইরের শুধু ৩০ লাখ মানুষ জমায়েত হয়েছেন।
১৯৯৩ সালে ২১ জুলাই রাজনৈতিক কর্মসূচির পালন করতে গিয়ে তৎকালীন যুব কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জি মিছিলে পুলিশের গুলিতে ১৩ জন যুব কংগ্রেস কর্মীর মৃত্যু হয়েছিল। নিহত সেই রাজনৈতিক সহকর্মীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই তৃণমূল কংগ্রেসের জন্মের পর থেকে শহিদ সমাবেশ পালন করে আসছে তৃণমূল কংগ্রেস।
তবে গত কয়েক বছর ধরে এই সমাবেশটি তৃণমূলে প্রধান রাজনৈতিক মহা সমাবেশ হিসেবেই স্বীকৃতি পেয়েছে।

এদিকে এদিন সভায় যোগ দিতে হাজার হাজার মানুষকে বাস, ট্রেন, ইঞ্জিন চালিত নৌকায় আসতে দেখা গিয়েছে। কলকাতা শহর ছাড়াও রাজ্যের ২২ জেলা থেকে প্রায় ১৫ লাখ মানুষ অতিরিক্ত শহরে প্রবেশ করেছেন বলে দাবি করেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব।
 

আরও পড়ুন

আজকের জনসভায় কী বার্তা দেবেন মমতা মমতার পাল্টা সভায় মোদীও আসছেন কলকাতায়

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop