পশ্চিমবঙ্গপশ্চিমবঙ্গের শাসক হলে বিজেপি অনুপ্রবেশকারী তাড়াবে

কলকাতা অফিস

fb tw
somoy
পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় এলে আসামের মতো তাদের রাজ্যটি থেকেও অনুপ্রবেশকারী তাড়ানোর হুমকি দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সোমবার (৩০ জুলাই) বিকালে কলকাতায় দলের সদর দফতরে আসামে নাগরিকত্বের তালিকা প্রকাশ প্রসঙ্গে তিনি এই মন্তব্য করেন।
এদিকে এই রাজ্যের নগর ও পৌর উন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম পাল্টা বলেছেন, বিজেপি বিভাজনের রাজনীতি করছে সেটা আসামের ঘটনায় আরো একবার প্রমাণ করলো। একই সঙ্গে ওই মন্ত্রীর কথায়, সারা ভারতের ক্ষমতায় থাকলেও পশ্চিমবেঙ্গ বিজেপি কিছুই করতে পারবে না।
ভারতের উত্তরপূর্বের রাজ্য আসামে নাগরিক তালিকা থেকে ৪০ লক্ষ বাঙালি ভোটার বাদ যাওয়ার ঘটনার জেরেই এদিন সোমবার ( ৩০ জুলাই) পশ্চিমবঙ্গের শাসক ও বিরোধী রাজনৈতিক দলের এমন পাল্টাপাল্টি অবস্থান পরিস্কার হয়ে যায়।
 
রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করানোর মতো অভিযোগ তুলে বলেন, । পশ্চিমবঙ্গে থাকা লক্ষ লক্ষ শরানীর্থ নিয়ে তার কোনও চিন্তা নেই। মতুয়াদের নিয়ে সাত বছর তিনি রাজনীতির সুবিধা নিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের জন্যও কিছু করেননি মমতা।
বিজেপির ওই নেতা বলেন, সুপ্রিম কোর্টের নিদের্শমতোই এই কাজ করা হচ্ছে। আর যারা নাগরিকত্বপাননি তারাও আবেদন করতে পারবেন। এটাও আইনে বলা আছে।
তিনি বলেন, ২০১৪ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত যেসব হিন্দুরা বাংলাদেশ থেকে ভারতের এসে আশ্রয় নিয়েছেন তাদের নাগরিকত্বও দেওয়া হবে। এটা বিজেপির সরকারের প্রতিশ্রুতি। আর একই ভাবে পশ্চিমবঙ্গ থেকে এক কোটি অনুপ্রবেশকারিদের তাড়ানো হবে। তাদের এখনই ব্যাগ গুছিয়ে রাখারও পরামর্শ দিয়েছেন শীর্ষ এই বিজেপি নেতা।
আসামের এই ঘটনায় প্রমান করে বিজেপি বিভাজনের রাজনীতি করে। আর সেটা কোনওভাবেই পশ্চিমবঙ্গে বাস্তবায়ন করা সম্ভব নয়। দিলীপ ঘোষের প্রতিক্রিয়ার পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে বলেছেন রাজ্যের প্রভাভশালী মন্ত্রী ফিরাহাদ হাকিম। তিনি বলেন, এই দলটির কাজই এমন। বাঙালি বিহারি বিভাজন, বাঙালি হিন্দিভাষীদের বিভাজন। পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং মমতা ব্যানার্জি যতদিন আছেন, এই রাজ্যে সকল ধর্ম, বর্ণের মানুষ একসঙ্গে থাকবেন। এখানে বিজেপির দাত ফোটানোর সুযোগ নেই।
এর আগে সোমবার দুপুরে রাজ্য সচিবালয় নবান্নে আসামের নাগরিক তালিকা থেকে বাঙালি দেখাও এর প্রতিবাদ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এদিনই দুপুরে বিজেপি শাসিত আসাম রাজ্যে দ্বিতীয় দফায়র নাগরিক তালিকা প্রকাশ করে এনআরসি কর্তৃপক্ষ।
আগের ৩ কোটি ২৯ লক্ষ থেকে এবার সংশোধিত তালিকায় রাখা হয়েছে ২ কোটি ৮৯ লক্ষ ভোটারকে। বাদ পড়েছেন ৪০ লক্ষ বাঙালি ভোটার। এই ঘটনায় তুমুল বির্তক এখন বিশ্ব-গণমাধ্যমে।
 
 
 
 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop