ভোটের হাওয়ানারায়ণগঞ্জ ৪ এ আধিপত্য শামীম ওসমানেরই

শওকত আলী সৈকত

fb tw
প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের শক্তিশালী ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত দেশের অন্যতম শিল্পাঞ্চল নারায়ণগঞ্জ ৪-আসন। আগামী সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নানা সমীকরণে ব্যস্ত বড় দুই দলের নেতাকর্মীরা। তবে এ আসনে আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট নেতা শামীম ওসমানের রয়েছে একচ্ছত্র আধিপত্য।  
 
ফতুল্লার ৬টি ইউনিয়ন এবং সিদ্ধিরগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত নারায়ণগঞ্জ ৪-আসন। জেলার পাঁচটি সংসদীয় আসনের মধ্যে সিদ্ধিরগঞ্জ ও ফতুল্লা এলাকার ভোটার সংখ্যা সবচে বেশি।তফসিল ঘোষণা না হলেও আলোচিত আসনটিতে নির্বাচনকে সামনে রেখে শহর ও শহরতলীসহ পাড়া-মহল্লার চায়ের দোকানগুলোতে চলছে নানা আলোচনা। এদিকে, আসনটিকে ঘিরে উভয় দলের কর্মী সমর্থকরা নানা পরিকল্পনার ছক কষছেন।
 
স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে এ আসনে ১৯৯১ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত ৪বারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমান আধিপত্য বিস্তার করে। ৯৬ এ আসনটি দখলে নেয় আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট প্রার্থী শামীম ওসমান। ২০০১ এ বিএনপির মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন ও ২০০৮ সালে জয় ছিনিয়ে নেয় ক্ষমতাসীন দল। সবশেষ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন শামীম ওসমান।
 
শাহ নিজাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, মহানগর আওয়ামী লীগ, নারায়ণগঞ্জ বলেন, তিনি সাতহাজার লাখ কোটি টাকার উন্নয়ন করেছেন, আমি বিশ্বাস করি শামীম ওসমানই বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন। 
মুহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন, সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা বিএনপি, নারায়ণগঞ্জ বলেন,  যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হয়, গণতান্ত্রিক নির্বাচন হলে আগামীতে আমার এলাকার জনগণ আমার পক্ষে থাকবে। 
ব্যাপক আলোচিত এ আসনটিতে মাদক, সন্ত্রাস ও যানজটমুক্ত নগরী গড়তে প্রত্যয়ীকেই নির্বাচিত করতে চান ভোটাররা।

নারায়ণগঞ্জ ৪-আসনে মোট ৬লাখ ৭৪ হাজার ১১জন ভোটার রয়েছে। 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop