পশ্চিমবঙ্গরথযাত্রা নিয়ে বিজেপির জয়

কলকাতা অফিস

fb tw
somoy
কলকাতা হাইকোর্টের একক ডিভিশন বেঞ্চে বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপির একটি রাজনৈতিক কর্মসূচি রথযাত্রা তথা গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রার শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দিয়েছে। একই সঙ্গে বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী এও নির্দেশ দেন, এই রথযাত্রার নিরাপত্তা এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন যেন কার্যকর ভূমিকা পালন করে এবং নিরাপত্তায় যেন পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়। 
রথযাত্রা তথা গণতন্ত্র বাঁচাও যাত্রা নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে প্রধান দুই রাজনৈতিক শিবিরের মধ্যে তুমুল আইনি যুদ্ধের পাশাপাশি বাকযুদ্ধও চলছিল গত তিন-চার মাস ধরে। 
পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপির কর্মীদের খুন, গুম হামলা-মামলাসহ রাজ্যের বিরোধীদের ওপর নানাভাবে অত্যচারের বিরুদ্ধে বিজেপি ‘গণতন্ত্র বাঁচাও’ বা ‘গণতন্ত্র উদ্ধার’ যাত্রা নামে একটি রাজনৈতিক কর্মসূচি করতে চেয়েছিল ডিসেম্বরের ৭,  ৯ এবং ১৪ তারিখে। কিন্তু তৃণমূল সরকার রথযাত্রার অনুমোদন দেয়নি। 
সেই যাত্রার অনুমোদন চেয়ে বিজেপি নেতৃত্ব কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন করলে এই একই বিচারক তাদের আবেদন খারিজ করে দিয়েছিলেন। যদিও সেই খারিজ হওয়ার পর বিচারকের রায়ের বিরুদ্ধে দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের আবার আপিল করেছিলেন বিজেপি। 
সেই আপিলের পর ওই বেঞ্চ রাজ্য সরকারের তিন শীর্ষ কর্মকতারে সঙ্গে বিজেপি নেতাদের বৈঠক করে রথযাত্রার বিষয়ে সিদ্ধান্ত বিজেপিকে জানানোর নির্দেশ দেন।  ১৫ ডিসেম্বর লালবাজারে মুকুল রায়, দিলীপ ঘোষ, কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র সঙ্গে রাজ্য সরকারের তিন শীর্ষ কতার বৈঠকের পরও নিরাপত্তার প্রশ্ন রেখে বিজেপিকে রথযাত্রার অনুমোদ দেয়নি তৃণমূল সরকার। 
ফলে, রাজ্য সরকারের ওই রায়ের বিরুদ্ধে আবারও আদালতের দরজায় কড়া নাড়েন বিজেপি নেতৃত্ব। সোমবার আদালতের বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তীর এজলাসে করা ওই আবেদনের শুনানি চলে গত দুদিন। 
আজও বৃহস্পতিবার সকালে বিচার দুপক্ষের আইনজীবীর বক্তব্য শোনেন। প্রায় ৫৪ মিনিটের সওয়াল-জবাব শেষে বিচারপতি শর্তসাপেক্ষে বিজেপিকে তাদের রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনের অনুমতি দেয়। 
আদালতের দেওয়া শর্তগুলোর মধ্যে অন্যতম যে জেলায় এই কর্মসূচি করা হবে ১২ ঘণ্টা আগে জেলা ও রাজ্য প্রশাসকের অগ্রিম জানাতে হবে। শুধু তাই নয়, রথযাত্রার সময় সাধারণ মানুষের চলাফেলা, যোগাযোগ কোনোভাবে যাতে বিঘ্নিত না হয় তাও দায়িত্ব নিতে হবে বিজেপি নেতৃত্বকে। 
একই সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা যাতে স্থিতাবস্থায় থাকেও বিজেপি নেতাদের তার জন্য বেশি সজাগ থাকতে বলা হয়েছে নির্দেশে। 
তবে রাজ্য প্রশাসনকে রথযাত্রার অনুমোদন নিয়ে টালবাহানা করায় আদালত তাদের ভৎসনা করেন এবং একই সঙ্গে বিজেপির চলমান এই কর্মসূচির নিরাপত্তা এবং সার্বিকভাবে আইনশৃঙ্খলার অবনিত যাতে না হয়, এর জন্য পর্যাপ্ত পুলিশ প্রশাসন নিয়োগের নির্দেশনাও দিয়েছেন বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী।
রথযাত্রার অনুমতি পেয়ে স্বাভাবিক ভাবে উচ্ছসিত রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপি নেতা ও রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, তৃণমূল সরকার কোর্টের কাছে থাপ্পড় খাওয়ার পর তাদের জ্ঞান হলো। অথচ আমরা এই অনুমোদন চেয়ে ১৯ অক্টোবর প্রথম রাজ্য সরকারের কাছে চিঠি দিয়েছিলাম। সেই চিঠির যদিও উত্তর তারা দিতো, তবে আজকে এইভাবে কোর্টের কাছে ধাক্কা খেতো না। আমাদেরও সময় নষ্ট হতো না। 
রাজ্য সরকারের শিক্ষামন্ত্রী, তথা তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, রাজ্য সরকার যেটা রাজ্যবাসীর জন্য মঙ্গল সেটাই করেছে।  
তবে কোর্টের রায় নিয়ে তিনি কোনও মন্তব্য করেননি। 
 
 
 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop