ksrm

বাংলার সময়জাবিতে ১৮তম পাখিমেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়

সময় সংবাদ

fb tw gp
somoy
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ১৮তম পাখিমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রাণিবিদ্যা বিভাগের আয়োজনে পাখিদের কিচিরমিচির আওয়াজ আর চোখ ধাঁধানো দৃশ্য দেখতে ভিড় জমেছে দর্শনার্থীদের। সঠিক পরিচর্যা পেলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় পাখিদের অভয়াশ্রম হতে পারে বলে মনে করেন প্রাণিবিদ্যা বিশেষজ্ঞরা।
ঝিলের জলে লাল শাপলার মেলা। আর নাম না জানা হাজারো পাখির কল-কাকলি। সকালের সোনালী রোদেও আড়মোড়া ভাঙেনি সূদুর সাইবেরিয়া ও মঙ্গোলিয়া থেকে আসা পরিযায়ী পাখিদের।
প্রতি শীতেই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে চোখে পড়ে পাখিদের এই সম্মিলন। ২০০০ সাল থেকে জন সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগ আয়োজন করে আসছে পাখিমেলার। ব্যতিক্রম ছিল না এবারো।
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. কামরুল হাসান বলেন, তাদের কার্যক্রমের সঙ্গে আপামর জনসাধারণ যুক্ত হলেই পাখি এবং পরিবেশের ভারসাম্য টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে। 
অতিথি পাখিদের সমারোহ দেখতে ক্যাম্পাস পরিণত হয়েছে দর্শনার্থীদের মিলনমেলায়। দর্শনার্থীরা বলেন, এসব পাখি দেখে শিশুরা নতুন নতুন পাখি সম্পর্কে ধারণা পায়।
মানুষ বাড়লে পাখি কমবে, বিষয়টা স্বাভাবিক। তবু পাখিদের বিচরণের জন্য আলাদা জায়গা তৈরি করে দিতে সরকার ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান বিশেজ্ঞদের।
পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হক বলেন, সরকারের সবচেয়ে বড় কাজ হলো কিছু জায়গা সংরক্ষণ করা।
প্রতি বছর দেশি-বিদেশি মিলিয়ে ১০ প্রজাতির পাখির সমাগম ঘটলেও এবার দেখা মিলেছে মাত্র ৫ প্রজাতির।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
GoTop