তথ্য প্রযুক্তির সময়শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনলাইনে নিবন্ধন করবেন যেভাবে

কামাল শাহরিয়ার

fb tw
somoy
ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে তথ্য প্রযুক্তিতে আরো দক্ষ করে গড়ে তুলতে ‘অবাক হচ্ছে বিশ্ব এবার, বাংলার শিশু প্রোগ্রামারা’ শিরোনামে দ্বিতীয়বারের মতো শুরু হচ্ছে জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। আগামী ২২মে প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণের মধ্য দিয়ে শুরু হবে দ্বিতীয় আসর।
সরকারের আইসিটি ডিভিশন ও তারুণ্যের প্লাটফর্ম ‘ইয়াং বাংলা’র আয়োজনে এবার দেশের ৬৪ জেলায় ২০০টি ‘শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবকে’কেন্দ্র করে এই প্রতিযোগিতা হবে। আগামী আগামী ২২ ও ২৩ মে, প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালার পর জেলার নির্বাচিত ল্যাবগুলোতে চলবে প্রশিক্ষণ ও প্রতিযোগিতা।
এ লক্ষ্যে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে অনলাইন নিবন্ধন প্রক্রিয়া। গত ১৩ মে শুরু হওয়া নিবন্ধন কাযক্রম চলবে পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত। রেজিস্ট্রেশনের জন্য http://nctpc.srdlict.com ঠিকানায় লগইন করতে অনুরোধ করেছে আয়োজকরা।
যেভাবে নিবন্ধন করবেন
ইন্টারনেট সচল থাকা কম্পিউটার, ট্যাব কিংবা মোবাইল ডিভাইসে http://nctpc.srdlict.com ঠিকানায় লগইন করার পর একটি নিবন্ধন বা রেজিস্ট্রেশন ফরম আসবে। তাতে প্রথমে নিজের নাম পরে বাবা ও মায়ের নাম সঠিকভাবে লিখতে হবে। এরপর জেন্ডার (পুরুষ/নারী কিংবা অন্যান্য) এবং আপনার শ্রেণি (যে শ্রেণিতে অধ্যয়নরত) বক্সটি নির্ভূলভাবে পূরণ করুন।
নিবন্ধন সম্পন্ন করতে আপনার ইমেইল ও মোবাইল নম্বর দিতে হবে। এরপর আপনি যে প্রতিযোগিতায় (স্ক্র্যাচ জুনিয়র, স্ক্র্যাচ, পাইথন জুনিয়র বা পাইথন) অংশ নিতে চান সেটি লিখতে হবে।
পরের বক্সটিতে আপনার স্কুলের নাম এরপর আপনার বর্তমান ঠিকানা লিখতে হবে। পরে দুটি বক্সের একটিতে আপনার বিভাগ ও জেলা সিলেক্ট করে দিতে হবে। সবশেষে নির্ভুলভাবে ক্যাপচায় প্রদর্শিত অক্ষর কিংবা নম্বর পূরণ করে ‘রেজিস্ট্রেশন করুন’ অপশনে ক্লিক করলেই আপনার নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।
কারা কোন গ্রুপে?
গতবারের মতো এবারো চারটি ক্যাটাগরিতে হবে প্রতিযোগিতা। সংশ্লিষ্টসূত্রে, যেকোন বিদ্যালয়ের শিশু থেকে ২য় শ্রেণির শিক্ষার্র্থীরা স্ক্র্যাচ জুনিয়র, ৩য়-৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা স্ক্র্যাচ, ৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা পাইথন জুনিয়র এবং ৯ম-১০ম শ্রেণি ও সদ্য পাসকরা এসএসসি পরীক্ষার্থীরা পাইথন সিনিয়র ক্যাটাগরিতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। এবারই  এসএসসি পাসকৃতদেরও সুযোগ দিচ্ছে আয়োজকরা।
রোড টু ন্যাশনাল প্রোগ্রামিং ক্যাম্প
সংশ্লিষ্টরা জানান, প্রাথমিক পর্যায়ে দেশের ৬৪ জেলায় নির্বাচিত ২০০টি ল্যাবে শুরু হবে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ। প্রত্যেকটি ল্যাবে ওই অঞ্চলের সবকটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা প্রশিক্ষণ নিতে পারবে। প্রতিটি ল্যাবে গড়ে ৭৫জন করে দেশব্যাপী প্রায় ১৫০০০ শিক্ষার্থীকে এই প্রশিক্ষণের অন্তর্ভুক্ত করা হবে।
প্রতিযোগিতা শুরুর আগে আইসিটি শিক্ষক এবং ল্যাব প্রশিক্ষক তার ল্যাবের সেরা প্রতিযোগীদের বাছাই করবেন। প্রতি ল্যাব থেকে স্ক্র্যাচের জন্য ৩জন করে টিম গঠন করা হবে, ৫টি টিমে মোট ১৫জন শিক্ষার্থী প্রতিটি ল্যাব থেকে স্ক্র্যাচ প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। পাইথনের জন্য প্রতিটি ল্যাব থেকে ১৫জন শিক্ষার্থী এককভাবে অংশ নেবে। প্রাথমিক ভাবে বাছাইকৃত শিক্ষার্থীদের নিয়ে জেলা পর্যায়ে ক্যাম্প ও প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।
জেলা পর্যায়ে বিজয়ীদের নিয়ে জাতীয় ক্যাম্প ও প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে সাভার শেখ হাসিনা যুব উন্নয়ন কেন্দ্রে। প্রতি জেলা থেকে বিজয়ী স্ক্র্যাচ টিম এবং বিজয়ী পাইথন প্রতিযোগীরা জাতীয় ক্যাম্পে যোগ দিয়ে ফাইনাল প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে।সেখান থেকে বাছাই করা হবে সেরা টিম। সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন বলে আশা করছেন আয়োজকরা।

আরও পড়ুন

আবারো শুরু হচ্ছে জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতাকোন কোন ভেন্যুতে চলবে জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop