বাংলার সময়'গেলে যান, না গেলে না যান'

সঞ্জয় কর্মকার অভিজিৎ

fb tw
somoy
ঈদের ছুটি শেষে রাজধানীতে কর্মস্থলে যোগ দিতে ঢাকামুখী যাত্রীদের স্রোত নেমেছে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে। এই সুযোগে অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন স্পিডবোট মালিকরা। তবে, প্রশাসনের পক্ষ থেকে তেমন কোন কার্যকরি পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি। যদিও শিবচর উপজেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামানের দাবি অতিরিক্ত যাত্রী ও ভাড়া আদায় বন্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হচ্ছে। এদিকে তাড়াহুড়ো করে উঠতে গিয়ে এক নারী যাত্রী লঞ্চের পন্টুন থেকে পদ্মানদীতে পড়ে যায়। তাৎক্ষনিক তাকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।
সরেজমিনে দেখা যায়, দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের কাছে অন্যতম নৌরুট কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুট। এই নৌরুটে ঈদ উপলক্ষে ২১ ফেরি, ৮৭টি লঞ্চ ও দেড় শতাধিক স্পিডবোট চলাচল করছে। আজ ভোরের আলো ফোটার সাথে সাথে ব্যস্ত হয়ে উঠে মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি নৌরুট। বেলা বাড়ার সাথে সাথে লঞ্চ, স্পীডবোট এবং ফেরিতে অতিরিক্ত যাত্রী ও যানবাহনের চাপ দেখা গেছে। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে লঞ্চ ও স্পীডবোটে উঠছেন কর্মজীবী মানুষরা। এছাড়া ফেরিগুলোতে যাত্রী ও যানবাহনের বাড়তি চাপ ছিল চোখে পড়ার মতো। অতিরিক্ত যাত্রী ও যানবাহনের চাপের কারণে যাত্রীদের জিম্মি করে স্পিডবোটে বাড়তি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।
স্বাভাবিক সময়ে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা ভাড়া নেয়া হয় স্পিডবোটে পদ্মানদী পার হতে। অথচ এখন নেয়া হচ্ছে ২০০ টাকা কিংবা তারও বেশি। এদিকে চলাচলকারী লঞ্চগুলোতেও গাদাগাদি করে যাত্রী তুলতে দেখা গেছে। অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই করে প্রতিটি লঞ্চ কাঁঠালবাড়ি লঞ্চঘাট থেকে ছেড়ে গেছে। এছাড়া ফেরিগুলোতেও যানবাহনের চাপ বেড়েছে কয়েকগুণ। বাড়তি যানবাহনের চাপ সামাল দিতে কাজ করছে বিআইডব্লিউটিএ’র কর্মকর্তারা।
খুলনার ফুলতলা থেকে আসা যাত্রী মো. সাগর হোসেন বলেন, 'পুলিশ-প্রশাসনের সামনেই অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। কিন্তু কেউ কিছু বলছেনা। প্রতিবাদ করে জানতে চেয়েছিলাম, উত্তরে সমিতির লোকজন বলেছেন গেল যান, না গেলে না যান। ১৫০ টাকার ভাড়া ২০০ করে নিবো।'
পটুয়াখালীর বাউফল এলাকার যাত্রী সুমি আক্তার বলেন, 'ছোট স্পিডবোটগুলোর ধারণ ক্ষমতা ১৪ জন। অথচ, গাদাগাদি করে বসানো হচ্ছে ২২ থেকে ২৪ জন। আর কোন কোন বোটগুলোতে বসানো হচ্ছে ২৬ জন করে। এ বিষয়ে প্রশাসনের নজরদারি আরো বাড়ানো দরকার।'
ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার মালিগ্রাম এলাকার আরেক যাত্রী মিলন আহম্মেদ বলেন, 'এটা নতুন কিছু নয়। প্রতিটি ঈদেই যাত্রীদের জিম্মি করে স্পিডবোট মালিক সমিতির লোকজন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে থাকে। আগে দুই’একবার প্রতিবাদ করেছিলাম, এখন আর করিনা। কারণ প্রতিবাদ করেও লাভ নেই।'
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে স্পিডবোট মালিক সমিতির নেতা মো. রাসেল জানান, 'বোটগুলো কাঁঠালবাড়ি থেকে যাত্রীবোঝাই করে গেলেও শিমুলিয়া স্পিডবোট থেকে খালি আসছে। যার কারণে একটু বাড়তি ভাড়া নেয়া হচ্ছে। তবে, তা সহনশীল।'
বিআইডব্লিউটিএর কাঁঠালবাড়ি লঞ্চঘাটের পরিদর্শক মো. আক্তার হোসেন বলেন, 'অতিরিক্ত যাত্রী ও যানবাহনের চাপ সামাল দিতে তৎপর রয়েছে বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএ, পুলিশ, র‌্যাব, ফায়ার সার্ভিস, আনসার, জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। লঞ্চ ও স্পিডবোটে অতিরিক্ত যাত্রী এবং অতিরিক্ত ভাড়া যাতে কেউ না নিতে পারে এ ব্যাপারে প্রশাসনের সবাই সর্তক অবস্থানে রয়েছে।'
মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান জানান, লঞ্চ ও স্পিডবোটে বাড়তি ভাড়া এবং অতিরিক্ত যাত্রী বহনের ব্যাপারে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে প্রশাসন। এজন্য জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের একাধিক টিমও কাজ করছে সার্বক্ষণিক।
মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার নিত্য গোপাল সরকার জানান, নদীতে পড়ে যাওয়া ওই যাত্রীকে উদ্ধার করে নিরাপদে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এছাড়া বাকি যাত্রীদের সতর্ক করা হচ্ছে।
মাদারীপুরের পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালদার বলেন, 'ঘাট এলাকায় পরিস্থিতি মোকাবেলায় পুলিশ তৎপর রয়েছে। যাত্রীদের যদি কোন অভিযোগ থাকে, তাহলে সরাসরি সরকারি মোবাইল কল করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop