প্রবাসে সময়ইউরোপের প্রলোভনে ছুটে যাওয়া দুই প্রবাসীর গল্প

সময় সংবাদ

fb tw
দীর্ঘ ছয় মাসের পথ পাড়ি দিয়ে ইউরোপে যান সিলেটের জকিগঞ্জের আব্দুস সামাদ। বিপদসংকুল এই পথের প্রতিটি পদেই ছিল মৃত্যুর হাতছানি। আর কেউ যেন ইউরোপের স্বপ্নে বিভোর হয়ে এই মৃত্যু ফাঁদে পা না বাড়ান, সেই আহ্বান তার।
মোটামুটি ভালো বেতনেই আব্দুস সামাদ কাজ করতেন সৌদি আরবের একটি কোম্পানিতে। তার আশপাশের অনেকেই ইউরোপে গিয়ে মোটা অংকের অর্থ উপার্জন করছেন, এমন তথ্য পাওয়ার পর তিনিও স্বপ্ন দেখেন সেখানে যাওয়ার।
দালালের সঙ্গে চুক্তি করে শুরু হয় তার ইউরোপ যাত্রা। তবে দালালের কথা আর কাজের মধ্যে কোনো মিল পাওয়া যায়নি। প্রতিকূল আবহাওয়া ও পরিস্থিতির মধ্যে সেই যাত্রা ভয়াবহ অভিজ্ঞতা সময় সংবাদকে জানান তিনি।
আব্দুস সামাদ বলেন, সারাদিন জঙ্গলে শুয়ে থাকতাম আর সারারাত হাঁটতে হতো। টানা দশদিন এইরকম হাটতে হয় আমাদের। শেষ দুইদিনে হয় খাদ্য সঙ্কট। মারা যাওয়ার মতো পরিস্থিতিতে ছিলাম আমরা।
এই পথের আরেক যাত্রী সিলেটের ফিরোজ। একই ধরনের অভিজ্ঞতার কথা বললেন তিনিও।
ফিরোজ বলেন, প্রায় দশদিন হাটার পর আমরা এক অঞ্চল থেকে অন্য অঞ্চলে ঢুকেছিলাম। এরপর আরও নানানভাবে ঘুরে আমাদের ইউরোপে ঢুকতে হয়েছে।
মে মাসে লিবিয়া থেকে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকাডুবির ঘটনায় প্রাণ হারান ৬০ জনের বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী। যাদের অধিকাংশই বাংলাদেশি। এ অবস্থায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ইউরোপে পাড়ি জমানো বাংলাদেশিদের পরামর্শ, উচ্চবিলাসী জীবনযাপনের স্বপ্নে বিভোর হয়ে আর যেন কেউ দালালের প্রলোভনে পা না বাড়ায়।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop