তথ্য প্রযুক্তির সময়সারাদেশে শুরু হলো জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
জেলা পর্যায়ে প্রশিক্ষণ কর্মশালার মধ্য দিয়ে সারাদেশে একযোগে শুরু হলো জাতীয় শিশু কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা।  ‘অবাক হচ্ছে বিশ্ব এবার, বাংলার শিশুরা প্রোগ্রামার’ স্লোগান নিয়ে প্রতিযোগিতার আয়োজক সরকারের আইসিটি বিভাগ এবং ইয়াং বাংলা।
শনিবার (১৫ জুন) সকালে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, রংপুর, রাজশাহী, সিলেট, ময়মনসিংহসহ ৬৪ জেলার ২শ’র বেশি শেখ রাসেলে ডিজিটাল ল্যাবে শুরু হয় ৫ দিনের এ আয়োজন। প্রথম দিনে প্রাথমিক স্কুলের দুই ক্যাটাগরিতে প্রোগ্রামারদের স্ক্র্যাচ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।
পূর্ব নির্ধারিত ভ্যেনুতে, অংশগ্রহণকারীদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন ৬৪ জেলার ৪০০ জন শিক্ষক, শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাবের ২০০ জন ল্যাব কো-অরর্ডিনেটর। শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার লক্ষ্যে গত ২২ ও ২৩ মে, রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে দু’দিনের কর্মশালায় তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।
আয়োজকরা জানান, দেশের ৬৪ জেলায় নির্বাচিত ২শ’ শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব ভেন্যুতে  রোববারও (১৬ জুন) স্ক্র্যাচ প্রোগ্রামারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। পরে ১৭ জুন তাদের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা হবে। আর, ১৮ ও ১৯ জুন অনুষ্ঠিত হবে পাইথন প্রোগ্রামারদের জন্য প্রশিক্ষণ। তাদের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে ২০ জুন।
সংশ্লিষ্টসূত্রে, যেকোন বিদ্যালয়ের শিশু থেকে ২য় শ্রেণির শিক্ষার্র্থীরা স্ক্র্যাচ জুনিয়র, ৩য়-৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা স্ক্র্যাচ, ৬ষ্ঠ-৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা পাইথন জুনিয়র এবং ৯ম-১০ম শ্রেণি ও সদ্য পাসকরা এসএসসি পরীক্ষার্থীরা পাইথন সিনিয়র ক্যাটাগরিতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ নিচ্ছেন। এবারই এসএসসি পাসকৃতদেরও সুযোগ দিচ্ছে আয়োজকরা।
জাতীয় শিশু কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় দেশের সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিতে নির্বাচিত ২শ’ ভেন্যুর বাইরেও প্রশিক্ষণ ও চূড়ান্ত প্রতিযোগিতার সুযোগ রয়েছে জানিয়েছেন সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) অ্যাসোসিয়েট কো-অর্ডিনেটর তন্ময় আহমেদ|
জেলা পর্যায়ে বিজয়ীদের নিয়ে জাতীয় ক্যাম্প ও প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে সাভার শেখ হাসিনা যুব উন্নয়ন কেন্দ্রে। প্রতি জেলা থেকে বিজয়ী স্ক্র্যাচ টিম এবং বিজয়ী পাইথন প্রতিযোগীরা জাতীয় ক্যাম্পে যোগ দিয়ে ফাইনাল প্রতিযোগিতায় অংশ নিবে। সেখান থেকে বাছাই করা হবে সেরা টিম। সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন বলে আশা করছেন আয়োজকরা।
এদিকে, দ্বিতীয়বারের এমন আয়োজন নিয়ে উচ্ছ্বসিত আইসিটি বিভাগ ও তারুণ্যের প্লাটফর্ম ইয়াং বাংলা। প্রতিযোগিতার প্রথম দিনেই প্রশিক্ষণ নিয়ে দারুণ খুশি খুদে প্রোগ্রামাররাও। তাদের পাশাপাশি অভিভাবকরা ভবিষ্যতেও এই প্রতিযোগিতা আয়োজনের দাবি জানান। এক্ষেত্রে প্রোগ্রামিং বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান আরও সুদৃঢ় করতে ‘জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা’র ব্যাপ্তি বাড়াতে চাচ্ছে আয়োজকরা।

আরও পড়ুন

কোন কোন ভেন্যুতে চলবে জাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতাজাতীয় শিশু-কিশোর প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ১৫ জুন ৬৪ জেলায় শুরু হচ্ছে প্রশিক্ষণ

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
এক্সক্লুসিভ লাইভ
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop