বাংলার সময়মাদারীপুর উপজেলা নির্বাচন: আ. লীগের দুপক্ষের ইজ্জতের লড়াই কাল

সঞ্জয় কর্মকার অভিজিৎ

fb tw
somoy
মাদারীপুর সদর উপজেলার পরিষদ নির্বাচন শুরু হচ্ছে আগামীকাল মঙ্গলবার (১৮ জুন)। এই নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পান জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে। অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান খান। আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মাদারীপুর-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য কৃষিবিদ আফম বাহাউদ্দিনের অনুসারী। অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান খান সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী ও মাদারীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শাজাহান খানের ছোটভাই।
ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মাদারীপুরে শাজাহান খান ও বাহাউদ্দিন নাছিমের আধিপত্য দীর্ঘদিনের। দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচী, রাজনৈতিক কর্মসূচী দুপক্ষই আলাদাভাবে পালন করে আসছে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে। এবারের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুপক্ষের ইজ্জতের লড়াইয়ে পরিণত হয়েছে। দুপক্ষই নির্বাচনে জয় পেতে মরিয়া হয়ে ওঠে। ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরেন উন্নয়নের নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে। সভা-সমাবেশ, মিটিং-মিছিলসহ নানা কর্মসূচী করেন তারা।
প্রভাবশালী দুই নেতার পছন্দের প্রার্থীরা চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করায় হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে। এদিকে নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে ইতিমধ্যে অর্ধশত মানুষ আহত হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে বেশ কয়েকটি ঘরবাড়ি। তবে, ভোটাররা চান সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন।
নাম না প্রকাশে কয়েকজন ভোটার জানান, তারা পছন্দের প্রার্থীকেই ভোট দিতে চান। প্রশাসন ও সরকারের কাছে তাদের চাওয়া সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। তারা নির্বাচনে কোন ঝামেলা চান না। বিগত দিনে দুপক্ষ আধিপত্য ও নির্বাচন নিয়ে মারামারি করে, আর এর খেসারত দিতে হয় সাধারণ জনগণকে। তাই ভোটকেন্দ্রে যাওয়া ও ভোট দিয়ে বাড়িতে ফিরে আসার সুষ্ঠু পরিবেশ চান তারা।
মাদারীপুর জেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, ১টি পৌরসভা ও ১৫টি ইউনিয়নের ১শ’ ১৫টি কেন্দ্রের ৬শ’ ৪৮টি কক্ষে ২ লাখ ৬৬ হাজার ৫শ’ ১৫জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩৫ হাজার ৩শ’ ৩৫ জন ও নারীর ভোটারের সংখ্যা ১ লাখ ৩১ হাজার ১শ’ ৬০ জন।
মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী এ্যাডভোকেট ওবায়দুর রহমান খান বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হলে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশা রয়েছে। চারদিকে শুধু আনারসের সমর্থক। তবে কেউ যদি নির্বাচনের দিন কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে কেন্দ্র দখল করতে চায়, তাহলে জনগণ পাল্টা প্রতিরোধ গড়ে তোলবে।
মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজল কৃষ্ণ দে বলেন, 'নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ করতে প্রশাসনের সহযোগিতা চাই। দলীয় নেতাকর্মীরা ভোট দিতে পারলে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত। তবে আনারসের কিছু সমর্থক নৌকার সমর্থকদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে, এতে কোন লাভ নেই। জনগণ নৌকার পক্ষে রয়েছে।'
মাদারীপুরের পুলিশ সুপার সুব্রত কুমার হালাদার বলেন, 'প্রতিটি কেন্দ্র একজন উপ-পরিদর্শক ও ৫জন পুলিশ সদস্য দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। এছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে ১০জন আনসার সদস্যও নির্বাচনের দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবে। পাশাপাশি ৩টি কেন্দ্রে একটি মোবাইল টিম থাকবে ও ১০টি কেন্দ্রের জন্য একটি স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে। যাতে করে নির্বাচনে কেউ কোন রকমের বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে।'
মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, ৩টি কেন্দ্রের জন্য একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকবে। ভোট শান্তিপূর্ণ করতে প্রশাসন তৎপর রয়েছে। কোন ধরনের নাশকতা কিংবা অপ্রতিকর পরিবেশ তৈরি হতে দেয়া যাবেনা। এছাড়া ৪ প্লাটুন বিজিবিও নির্বাচনের কাজে দায়িত্ব পালন করবেন।
উল্লেখ্য, এই নির্বাচনে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগের ভিত্তিতে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.কামরুল হাসান, উপ-পরিদর্শক শ্যামলেন্দু ঘোষ ও আঙ্গুল কাটা তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক মো. রমজান কাজীকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া আধিপত্য নিয়ে দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মাঝে কয়েক দফা সংঘর্ষে আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধশত।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop