প্রবাসে সময়প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়া রোহিঙ্গা আটক

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
মালয়েশিয়ায় চার সন্দেহভাজন জঙ্গিকে আটক করেছে দেশটির দেশটির টেরোরিজম বিভাগ। এদের মধ্যে দুইজন মিয়ানমার, একজন ফিলিপিনো ও অপরজন ইন্ডিয়ার নাগরিক। 
স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৯ জুলাই) দেশটির সংবাদ সংস্থা ‘বারনামা’ প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, মিয়ানমারের দুই জন সন্ত্রাসীর মধ্যে একজন রোহিঙ্গা যুবক আবদুল খালেক। সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সোশ্যাল মিডিয়ায় হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিলেন এই সন্ত্রাসী। এরই সূত্র ধরে এই হুমকি দাতাসহ চার সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির কাউন্টার টেররিজম বিভাগ। 
খবরে বলা হয়, এ চার সন্ত্রাসী চরমপন্থী গ্রুপের সঙ্গে জড়িত, যার মধ্যে একজন রোহিঙ্গা, যিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার একটি ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করেন।
মালয়েশিয়ার পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল দাতুক সেরি আব্দুল হামিদ বদর এক বিবৃতিতে বলেন, ২৪ জুন হুমকি দাতা ওই রোহিঙ্গা নাগরিককে কেদা সুঙ্গাই পেতানি থেকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি ওই এলাকায় একটি নির্মাণ সাইটে কাজ করতেন।
চলতি বছরের ১৪ জুন থেকে ৩ জুলাই পর্যন্ত এই সন্ত্রাসী গ্রুপকে অনুসরণ করে আসছিল টেরোরিজম বিভাগ। মঙ্গলবার ৩ জুলাই মালয়েশিয়ার কেদাহ রাজ্যের বুকিত পিনাং থেকে ২৫ বছর বয়সী এক মিয়ানমারের নাগরিককে গ্রেফতার করা হয়। সন্দেহভাজন ব্যক্তি ওই এলাকার একটি মাদরাসার শিক্ষক হিসেবে কাজ করতেন। পুলিশ জানায়, গ্রেফতার হওয়া ওই রোহিঙ্গা আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (এআরএসএ) সমর্থক।
২য় জন ৫৪ বছর বয়সী এক ফিলিপিনোকে গত ১৪ জুন সেলাঙ্গরের ক্লাং থেকে গ্রেফতার করা হয়। ওই ফিলিপিনো কুখ্যাত আবু সায়েফ সন্ত্রাসী দলের সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে গ্রেফতার হন। তার বিরুদ্ধে মানব অপহরণের অভিযোগও রয়েছে।
৩য় জন গ্রেফতার হন গত ২১ জুন আম্পাং থেকে। তিনি শিখ জঙ্গি গোষ্ঠী বাবর খালসা ইন্টারন্যাশনালের (বিকেআই) সক্রিয় সদস্য বলে জানায় পুলিশ। ২৪ বছর বয়সী এই ব্যক্তি ভারতীয় নাগরিক। তিনি ২০১৮ সালের নভেম্বরে মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করেন এবং ওই সন্ত্রাসী গ্রুপের পেছনে তিনি ৭হাজার ৬’শ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত খরচ করেন।
৪র্থ জনকে গত ২৪ জুন ৫৪ বছর বয়সী এক ফিলিপিনো ইলেকট্রিশিয়ানকে গ্রেফতার করা হয়। দেশটির পুলিশ জানায়, গ্রেফতার হওয়া এই রোহিঙ্গা আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (এআরএসএ) সমর্থক।
আবদুল হামিদ বলেন, পেনাল কোডের (অ্যাক্ট ৫৭৪) অধীনে সন্ত্রাসবাদ দমন এবং নিরাপত্তা অপরাধ (বিশেষ ব্যবস্থা) ২০১২ (আইন ৭৪৭) আইনে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop