বাংলার সময়কুড়িগ্রামের নদ-নদীর পানি বেড়ে বন্যার আশঙ্কা

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
অবিরাম বৃষ্টির আর উজানের ঢলে কুড়িগ্রামের ওপর দিয়ে প্রবাহিত নদ-নদীগুলোতে অস্বাভাবিক হারে পানি বাড়তে শুরু করেছে। এর ফলে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। 
    
 ইতিমধ্যে সদর উপজেলার ব্রহ্মপুত্র, দুধকুমার ও গঙ্গাধর নদী পাড়ের যাত্রাপুর ইউনিয়নের ঝুনকার চর, পশ্চিম ভগবতীপুর, রলাকাটা, খেওয়ার আলগা, পার্বতীপুর শিবেরপাতি, উত্তর কালির আলগা, গোয়ালপুরি,  অষ্টআশির চর ও চর যাত্রাপুর-এই ৯টি দ্বীপচরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। তবে বাড়িঘরে এখনও পানি ঢোকেনি বলে জানিয়েছেন যাত্রাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী সরকার। 
 স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. রফিকুল ইসলাম জানান, নদ-নদীগুলোতে অস্বাভাবিক হারে পানি বাড়া অব্যাহত থাকায় বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে। মঙ্গলবার (৯ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে বুধবার (১০ জুলাই) সকাল ৬টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীর ফেরীঘাট পয়েন্টে ৫০ সেন্টিমিটার, ব্রহ্মপুত্রে নদের চিলমারী পয়েন্টে ৩৪ সেন্টিমিটার, নুনখাওয়া পয়েন্টে ৩০ সেন্টিমিটার ও তিস্তা নদীর কাউনিয়া পয়েন্টে ১৭ সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে।
  এদিকে কুড়িগ্রাম-যাত্রাপুর সড়কের শুলকুর বাজার এলাকায় এলজিইডি কর্তৃক নির্মাণাধীন ৯০ মিটার দৈর্ঘ্যের সেতুর পাশে চলাচলের বিকল্প সড়কের মাঝখানের কাঠের সেতুর দু'পাশের মাটি সপ্তাহখানেক আগে পানির তোড়ে ভেসে যায়। এই ভাঙা অংশে বাঁশের বেড়া ফেলে সাময়িকভাবে চলাচলের ব্যবস্হা করা হয়েছিল। সেই অংশ আবারও ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এমনিতেই ওই সড়কে যাত্রী ও পণ্যবাহী যানবাহনের চলাচল বন্ধ রয়েছে।
এলজিইডির স্থানীয় দপ্তরের সহকারী প্রকৌশলী মো. নাজমুল হোসেন জানান, ওই স্থান ভেঙে যাওয়ার পাশাপাশি পানিতে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এজন্য ওই এলাকায় ড্রামের ওপর ভাসমান সেতু নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop