বাংলার সময়বাঁধ দেয়ার পরও কমেনি পাহাড়ী ঢলের দুর্ভোগ

সময় সংবাদ

fb tw
নতুন বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ দেয়ার পরও পাহাড়ি ঢলের দুর্ভোগ কমেনি ফেনীর পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলাবাসীর। সেখানকার লাখ লাখ মানুষকে বর্ষা মওসুমে ক্ষতি আর দুর্ভোগের প্রহর গুণতেই হচ্ছে। এদিকে বাঁধ তৈরির সাত বছর না গড়াতেই কর্তৃপক্ষ বলছে ভাঙন প্রতিরোধ সম্ভব নয়।
বছরের পর বছর ধরে বর্ষা এলেই ফেনীর মুহুরি নদীর উজানে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের পাহাড় থেকে ধেয়ে আসা ঢলের পানিতে তলিয়ে যেতো ভাটির পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলার বিস্তৃর্ণ এলাকা। আর এর স্থায়ী সমাধানে ২০০৬ ও ২০০৭ থেকে টানা ৬টি অর্থ বছর শেষে ২০১২ সালে পর্যায়ক্রমে শেষ হয় মুহুরী ও কহুয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের ১শ ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন বাঁধের নির্মাণ কাজ।
অথচ নির্মাণের পরের বছর থেকে বর্ষা মওসুমে উজানের পানির চাপে একের পর এক বাঁধ ভেঙ্গে কোটি কোটি টাকার ক্ষতি ও দুর্ভোগের মুখে পড়ছে মানুষ। মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) রাতে ১২টি জায়গায় বাঁধ ভেঙ্গে প্লাবিত হয়েছে পরশুরাম ও ফুলগাজী উপজেলার ১৫টি গ্রাম। নতুন বাঁধ দেয়ার পর গত ছয় বছরে বাঁধের দেড় শতাধিক ভাঙন মেরামতে পানি উন্নয়ন বোর্ড ব্যয় করেছে প্রায় ২০ কোটি টাকা। এ ব্যয়কে সুবিধাভোগীরা মনে করছেন অপচয় হিসেবে।
স্থানীয় একজন বলেন, 'আমাদের নদীর বাঁধ, নদীর পাশেই রয়ে গেছে। উঠিয়ে যদি দূরে সরিয়ে দেয় তাহলে ভাল হত।'
এদিকে বুধবার (১০ জুলাই) বাঁধের ভাঙন পরিদর্শনে এসে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা জানান, স্থায়ী সমাধানে নদী খনন ও সম্প্রসারণ করে নতুন বাঁধ দেয়ার পরিকল্পনা আছে।
পাউবো অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী জহির উদ্দিন আহমেদ বলেন, 'সম্পূর্ণ নদীকে পুনঃখনন করা পরিকল্পনা নিয়েছি। এছাড়া যেখানে বাঁধ আছে, সেখান থেকে সরিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা হাতে নিয়েছি।'
ফেনীর পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্য মতে, চলতি বর্ষা মওসুমের আগে এবারও তাদের মুহুরি ও কহুয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের ১৩টি স্থানে সোয়া কোটি টাকার ভাঙন মেরামতের কাজ চলছে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop