মহানগর সময়ইসলামি পর্যটনকে বিশ্ব বাণিজ্য ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে তোলার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

সময় সংবাদ

fb tw
ওআইসির দেশগুলোকে নিজেদের সমস্যায় এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন- মুসলিম সম্প্রদায়ের ভাগ্য নিয়ে কাউকে ছিনিমিনি খেলতে দেয়া হবে না। সকালে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে 'ওআইসি সিটি অব ট্যুরিজম' এর উদযাপন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্বে এ কথা বলেন তিনি। এ সময়, পর্যটনকে বিশ্ব বাণিজ্যের ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে তুলতে সুনির্দিষ্ট রোডম্যাপ প্রণয়ন জরুরি বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।
রাজধানী হিসেবে ঢাকায় রয়েছে চারশো বছরের পুরনো ইতিহাস আর ঐতিহ্য। চারপাশে ছড়িয়ে থাকা এসব পুরাকীর্তি আর প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন দেখতে প্রতিদিনই ভিড় জমান বিভিন্ন দেশ থেকে আসা পর্যটকরা। পর্যটন ব্যবসায় বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে, তখন বাংলাদেশও ক্রমেই এর মুসলিম ঐতিহ্য আর প্রাকৃতিক লীলাভূমির সম্ভার নিয়ে মাথা তুলে দাঁড়াতে চায়।
গেল বছর ওআইসিভুক্ত দেশগুলোর পর্যটনমন্ত্রীদের দশম সম্মেলনে ২০১৯ সালের জন্য ঢাকাকে ঘোষণা করা হয় ওআইসি সিটি অব দ্য ট্যুরিজম হিসেবে। তারই ধারাবাহিকতায়, বৃহস্পতিবার দুদিন ব্যাপি উদযাপন অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী পর্বে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।
সংস্থাটির সহকারী সেক্রেটারি মুসা কুলাকলিকায়াসহ ৩০টি ওআইসি সদস্য দেশের প্রতিনিধিসহ এতে অংশ নেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট নীতিনির্ধারকরা। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ইসলামী পর্যটনের বাজার সম্প্রসারণে প্রণয়ন করতে হবে সুনির্দিষ্ট পথনকশা।
এসময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'সমগ্র দেশে আজ পর্যটন একটা দ্রুত বর্ধনশীল খাত হিসেবে স্বীকৃতি অর্জন করেছে। বিশ্ব ভ্রমণ ও পর্যটন খাত তথ্যমতে সব দেশেই জাতীয় আয় পর্যটন ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। আমাদেরকেও সেদিকে লক্ষ্য রেখে বাংলাদেশিকে আরো আকর্ষণীয় করা ও পর্যটকদের কিভাবে আরো আকর্ষিত করা যায় সেদিকে লক্ষ্য দেয়া প্রয়োজন বলে আমি মনে করি। তার কারণ দেশের বৈচিত্র্য মানুষের কাছে পৌঁছাতে হবে। পর্যটনকে বিশ্বে ব্র্যান্ড হিসেবে গড়ে তুলতে হলে সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও রোডম্যাপ তৈরি করতে হবে।
তিনি আরও বলেন, 'আমি আরো আশা করছি যে, আন্তঃ ওআইসি পর্যটক প্রবাহ বৃদ্ধি করার লক্ষ্যে ভিসা প্রসেসিং সহজকরণ করা, মান উন্নয়নের উদ্যোগ নিতে হবে।'
বিশ্বজুড়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের সম্মান সমুন্নত রাখতে ওআইসিভুক্ত দেশগুলোকে নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদারের উপর গুরুত্বারোপ করেন শেখ হাসিনা।
তিনি জানান, দেশে পর্যটক প্রবাহ বাড়াতে প্রয়োজনে ওআইসিভুক্ত ও পাশ্চাত্যের দেশগুলোর জন্য কক্সবাজারে আলাদা জোন গড়ে তুলবে সরকার।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop