বাংলার সময়সারাদেশে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
আজ বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মত বাংলাদেশেও নানা আয়োজনে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে।
বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাণীতে তিনি বলেন, পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমকে জোরদার করতে কেন্দ্রীয় থেকে তৃণমূল পর্যন্ত সবাইকে একযোগে কাজ করে সেবার মান আরো বাড়াতে হবে।
তিনি আরো বলেন, 'দেশে বর্তমান জনসংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশ কর্মক্ষম। বয়স কাঠামোর এই পরিবর্তন আমাদের সামনে ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড এর সুফল অর্জনের সুযোগ এনে দিয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগানোর জন্য মানুষকে দক্ষ জনশক্তি তথা মানবসম্পদে পরিণত করার বিকল্প নেই।'
রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি দেশের অন্যান্য জেলাগুলোতেও নানা আয়োজনে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে।
‘জনগণের ক্ষমতায়ন, জাতির উন্নয়ন’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে মাদারীপুরে পালন করা হয়েছে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। সকাল ৯টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পরিবার পরিকল্পনা অফিসে গিয়ে শেষ হয়। পরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী ও মাদারীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শাজাহান খান। এসময় তিনি ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পরিবার পরিকল্পনা অফিসের নবনির্মিত ৪ তলা ভবনের উদ্বোধনও করেন। পরে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ইউনিয়ন পর্যায়ে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করার জন্য পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
দিবসটি উপলক্ষে সকালে বাগেরহাট স্বাধীনতা উদ্যান থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে বাগেরহাট সংস্কৃতি ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত কর্মীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। দিবসটি উপলক্ষে সকালে বাগেরহাট স্বাধীনতা উদ্যান থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে বাগেরহাট সাংস্কৃতি ফাউন্ডেশন মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ নির্বাচিত কর্মীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।
র‍্যালি ও আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে নেত্রকোনায় বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস পালিত হয়েছে। সকালে জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের উদ্যোগে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে থেকে পৌর শহরে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়। শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মোক্তারপাড়া পাবলিক হলে এসে শেষ হয় র‍্যালিটি। পরে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে পাবলিক হলে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলায় কর্মরত পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন।