বাংলার সময়নারায়ণগঞ্জে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে যুবক নিহত

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে পৃথক দু’টি ঘটনায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে অজ্ঞাতপরিচয় যুবক (২৫) নিহত ও রেশমা (৩৫) নামে এক নারী গুরুতর আহত হয়েছেন।
শনিবার (২০ জুলাই) সকালে সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জ থানার মিজমিজি আল আমিন নগর ও পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় এ দুটি ঘটনা ঘটে। 
খবর পেয়ে পুলিশ অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।
অপরদিকে পাইনাদী নতুন মহল্লা এলাকায় গণপিটুনিতে আহত ওই নারীকে উদ্ধার করতে গেলে জনতা-পুলিশ আধা ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে ওই নারীকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে থানায় ও পরে হাসপাতালে পাঠায়। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শাহীন শাহ পারভেজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল ৮টার দিকে মিজমিজি আল আমিন নগর এলাকার রাজমিস্ত্রি সোহেলের মেয়ে সাদিয়া (৭) স্কুলে যাওয়ার পথে নিহত যুবক তাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হলে জিজ্ঞাসাবাদ করে। এক পর্যায়ে সে অসংলগ্ন কথাবার্তা বলে ও পালাতে চেষ্টা করে। 
এ সময় স্থানীয় জনতা উত্তেজিত তাকে গণপিটুনি দিলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ শহরের ৩শ’ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত বলে ঘোষণা করেন।
অপরদিকে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী নতুন মহল্লার শাপলা চত্বরে এলাকায় ইটালী প্রবাসী বিল্লালের বাড়ির চার তলায় খাদিজার ফ্লাটে রেশমা নামে এক নারী বিনা অনুমতিতে প্রবেশ করে নাদিম (৩) নামে এক শিশুকে পুতুল দেয়। এতে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হলে বাড়িওয়ালাকে খবর দেয়। খবর পেয়ে বাড়ির মালিকসহ এলাকাবাসী ওই বাড়ির সামনে এসে জড়ো হন।  
এক পর্যায়ে উত্তেজিত জনতা তাকে ছিনিয়ে নিয়ে গিয়ে গণপিটুনি দিয়ে পিএম-এর মোড়ে আল বালাগ স্কুলে আটকে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করতে গেলে উত্তেজিত জনতার সাথে আধা ঘণ্টাব্যাপী ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে ওই নারীকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে পাঠায়।
সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শাহীন শাহ পারভেজ জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে এবং আহত নারীকে খানপুর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতের নাম পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে।
এ ব্যাপারে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুবাস চন্দ্র সাহা জানান, ছেলেধরা গুজবে গণপিটুনির এসব ঘটনা ঘটছে। সিদ্ধিরগঞ্জে গণপিটুনিতে এক যুবক নিহত ও এক নারী আহত হওয়ার ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানান তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop