অন্যান্য সময়ডেঙ্গু: হারপিক-ব্লিচিং গুজবে কান না দেয়ার পরামর্শ

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
ডেঙ্গু ইস্যুতে ছড়ানো হচ্ছে একের পর গুজব। ডেঙ্গু আতঙ্ককে ব্যবহার হচ্ছে ব্যবসায়িক লাভেও। এবার ফেসবুক, হোয়াটস অ্যাপসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে নতুন বিভ্রান্তিকর তথ্য।
ফেসবুক, ম্যাসেঞ্জার কিংবা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের কাছে বার্তা পাঠিয়েডেঙ্গু মশার বংশবৃদ্ধি রোধে ড্রেন-নর্দমায় হারপিক ও ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি ফেলার আহ্বান জানানো হচ্ছে রাজধানীবাসীকে। তবে চিকিৎসকরা বলছেন, এতে লাভের চেয়ে ক্ষতির মুখে পড়বে মানবদেহসহ প্রাণীকূল।
রোববার থেকে ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো ওই বার্তায় বলা হয়, ‘ঢাকায় বসবাসকারী সকলে যদি আগামী শুক্রবার (২ আগস্ট) বাদ জুমা’ প্রতিটি বাসার বেসিন-এ "500 ml" এর একটা টয়লেট ক্লিনার বা 500 gm ব্লিচ পাউডার একযোগে ঢেলে পানি দিয়ে দেয়! তাহলে ঢাকা শহরের ৭০% ড্রেন, ডুবা-নালা সহ সংযুক্ত সকল মশার ডিম পাড়ার পানির উৎসে থাকা মশা এবং এর লার্ভা ধ্বংস হয়ে যাবে।’
এরকম বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে পড়ার পর টয়লেট ক্লিনার বিক্রেতাদের একটি প্রতিষ্ঠান ফেসবুকে স্পন্সর বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে। সেখানে বেচাকেনায় ছাড়া দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।
এদিকে, শুধু রাজধানীতে নয় বিভ্রান্তিকর ওই বার্তাটি ঢাকার বাইরের এলাকার ফেসবুক ও হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহারীকারীদের কাছে পাঠানো হচ্ছে। অনেকে না জেনেই সেটি বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করায় দ্রুতই তা আরও ছড়িয়ে যাচ্ছে।
এর প্রেক্ষিতে সোমবার রাতে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার শাহ আলী ফরহাদ। চিকিৎসকদের বক্তব্য উর্দ্ধৃত করে তিনি গুজব বা বিভ্রান্তিকর তথ্যে কাউকে কান না দেয়ার পরামর্শ দেন।
তিনি তার ফেসবুকে লেখেন, ‘আমি দুইজন পাবলিক হেলথ বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলে নিশ্চিত হয়েছি এ ধরণের কাজে কোন উপকার ত হবেই না, বরং ক্ষতির পরিমাণ হবে দ্বিগুণ। এডিস মশা শুধুমাত্র পরিষ্কার ও জমে থাকা পানিতেই বংশ বিস্তার করে।’
“তাই ড্রেনে ব্লিচিং পাউডার ও হারপিক ঢেলে এডিস মশা থেকে বাঁচা যাবে না। বরং একযোগে হারপিক ও ব্লিচ (ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি ঢালা মানে হচ্ছে আমাদের সুয়ারেজ ব্যবস্থায় অতিমাত্রায় ক্ষতিকর পদার্থ (রাসায়নিক) ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে নতুন বিপদ ডেকে আনা। এই গুজবে কান দিবেন না, যারা এই গুজব ছড়াবে তাদের চ্যালেঞ্জ করুন।”
নর্দমায় হারপিক বা ব্লিচিং পাউডার ব্যবহার করলে তার প্রতিক্রিয়া কি হতে পারে- এ বিষয়ে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ড. উত্তম কুমার বড়ুয়া গণমাধ্যমকে বলেন, টয়লেট ক্লিনার কিংবা ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি নর্দমা বা ড্রেনে ফেলার বিষয়টি খুব সামান্য মনে হলেও এর ফল হবে খুব ভয়ানক।
তিনি বলেন, ‘সামান্য হারপিক বা ব্লিচিং পাউডার হাতে লাগলেই আমাদের চামড়া খসে পড়তে পারে। সেখানে যেভাবে কোটি কোটি ব্লিচিং পাউডারের প্যাকেট এবং হারপিকের কথা বলা হচ্ছে-এটি নর্দমায় ফেলা হলে তার রাসায়নিক ক্ষতি পরিবেশে কতটা মারাত্মক হতে পারে তা কল্পনাতীত। এতে মানুষের ফুসফুসের পাশাপাশি ডাইজেস্ট ব্যবস্থাপনায় মারাত্মক ক্ষতি করবে। তাই রাজধানীসহ সবাইকে আরও সচেতন হতে হবে।’

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop