ksrm

আন্তর্জাতিক সময়কাশ্মীরিদের লড়াই শুরু করতে বলল পাকিস্তান, পর্যবেক্ষণে চীন

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
জম্মু-কাশ্মীরে ভারতের সিদ্ধান্ত প্রতিহত করতে নতুন করে লড়াই শুরুর জন্য পাকিস্তানি এবং কাশ্মীরীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি।
সোমবার (১২ আগস্ট) সংবাদ সম্মেলনে আলোচনার কোনো পরিবেশ নেই বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
ভারত-পাকিস্তান উত্তেজনায় গভীর উদ্বেগ জানিয়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সংকট সমাধানের আহ্বান জানিয়েছে চীন।
জবাবে, মতভেদকে বিরোধে রূপ না দিতে বেইজিংয়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে নয়াদিল্লি।
এরমধ্যেই, মোদি সরকারের সিদ্ধান্ত অধিকাংশ মানুষই পছন্দ করেনি বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং।
এদিকে, পরিস্থিতি বিবেচনায় কাশ্মীরের ১৪ জেলায় অবরোধ শিথিল করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।
জম্মু কাশ্মীরে সোমবার ঈদুল আজহার বড় কোনো জামাতের অনুমতি দেয়নি ভারত। বাধ্য হয়ে পাড়ামহল্লায় ছোট ছোট জামাতে নামাজ আদায় করেন কাশ্মীরীরা। 
এদিন, রাজধানী শ্রীনগরে ঈদের নামাজের পর বিক্ষোভে নামেন কয়েক হাজার মানুষ। ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ ও ৩৫-এর এ ধারা বাতিল এবং নয়াদিল্লির নজিরবিহীন অবরোধের প্রতিবাদে ঈদকে শোকের দিন হিসেবে আখ্যা দেন কাশ্মীরের বাসিন্দারা।
কাশ্মীরিরা বলছেন, চারদিকে শোকের পরিস্থিতি বিরাজ করছে। আপনি আমার কণ্ঠস্বর শুনতে পাচ্ছেন। আমরা মারা যাচ্ছি। আমাদের খাবার কিছু নেই। ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা এবং জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান-ভারতীয় জালিম সরকারের হাত থেকে আমাদের রক্ষা করুন।
কাশ্মীরিরা বলছেন, নিপীড়ন থেকে রক্ষার জন্য বিশ্ববাসীর কাছে আহ্বান জানাচ্ছি। কতলোক মারা গেছে আমরা জানি না। সর্বত্র খারাপ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। কারো সঙ্গে কেউ যোগাযোগ করতে পারছে না। আর মোদি বলছেন, কাশ্মীরে শান্তি বিরাজ করছে।
অবরোধের কারণে ঈদে বাড়ি যেতে পারেননি ভূস্বর্গের বাইরে থাকা কাশ্মীরিরা। এদিন, নয়াদল্লিতে স্বজনছাড়া ঈদ উদযাপনকে বিষন্নতা বলে মন্তব্য করেন তারা। এ কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন অরুন্ধতী রায়সহ বিখ্যাত বহু মানুষ।
কাশ্মীরি কিশোরী বলেন, সরকারে পদক্ষেপে আমরা ক্ষুব্ধ। জানিনা কি করা উচিৎ। আমরা অসহায়, তবে আশাবাদী। স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করেত চাই। জানতে চাই সেখানে কি ঘটছে।
কাশ্মীরিরা বলছেন, আত্মীয় স্বজন, বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাৎ করা, তাদের সঙ্গে খাওয়া দাওয়া, ঘোরাফেরা এগুলো ঈদের অন্যতম অংশ। আমরা সবকিছু থেকে বঞ্চিত। বাড়ি যেতে চেয়েছি, কিন্তু অবরোধের কারণে পরিবারকে একটা খুদে বার্তা পাঠাতে পারিনি, তাদের কাছ থেকেও পাইনি।
কাশ্মীরিদের জন্য ফুলের মালা নিয়ে কেউ অপেক্ষা করবে না বলে সতর্ক করেছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। এসময় পাকিস্তান ও কাশ্মীরকে জেগে ওঠার আহ্বান জানান তিনি।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ভারতের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচ সদস্যের যেকোনো একটি রাষ্ট্র আপত্তি জানাতে পারে। এতে কোনো সন্দেহ নেই। বোকার স্বর্গে বসবাস বন্ধ করো। পাকিস্তানিও কাশ্মীরিদের বলছি- কেউ তোমাদের আপ্যায়ন করার জন্য বসে নেই। অধিকার আদায়ে নতুন কোরে লড়াই শুরু করো। কারণ আলোচনার কোনো পরিবেশ নেই।
গেলো সপ্তাহে জম্মু-কাশ্মীর ইস্যুতে চীনকে বিস্তারিত জানিয়ে আসেন কুরেশি। এরপরই তিনদিনের সফরে বেইজিংয়ে ভারতীয় পরারষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে, জম্মু-কাশ্মীর ইুস্যকে অভ্যন্তরীণ দাবির পাশাপাশি চীনের সঙ্গে সীমান্ত নিয়ে কোনো দ্বন্দ্ব নেই বলে বেইজিংকে নিশ্চিত করে নয়াদিল্লি। এছাড়া আস্তানা সমঝোতা ও ইউহান সম্মেলনের অর্জন রক্ষায় চীনের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। জবাবে বর্তমান উত্তেজনাপূর্ণ পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ জানিয়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সংকট সমাধানের আহ্বান জানায় চীন।
চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই বলেন, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের মূলনীতি অনুযায়ী আমাদের মধ্যে সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। চীন ও ভারত জনসংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে বড় দুটি রাষ্ট্র। আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতা রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব। কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত পাকিস্তানের উত্তেজনা গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি আমরা। আঞ্চলিক শান্তি রক্ষায় ভারতও গঠনমূলক পদক্ষেপ নেবে বলে আমাদের বিশ্বাস।
ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেন, ভারতের সাংবিধানিক সিদ্ধান্ত নতুন কোরে কোনো সার্বভৌমত্ব দাবি করেনি। ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধবিরতিও লঙ্ঘন করেনি, এমনকি ভারত-চীন সীমান্তেও কোনো পরিবর্তন হয়নি। পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে আমরা আশাবাদী। সংযত আচরণের মাধ্যমে আঞ্চলিক শান্তি ও নিরাপত্তা রক্ষায় ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।
জম্মু কাশ্মীর ইস্যুতে মোদি প্রশাসনের সিদ্ধান্তের কারণে ক্রমেই দ্বন্দ্ব বাড়ছে ভারতের রাজনীতিতে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ বলেন, বিজেপি সরকারের পদক্ষেপ বেশরিভাগ মানুষই পছন্দ করেনি। এসময় কাশ্মীর ইস্যুতে সরকারের পরিকল্পনা প্রকাশের দাবি জানান তিনি। এদিকে, পরিস্থিতি বিবেচনায় কাশ্মীরের ১৪ জেলার নিরাপত্তা বিধিনিষেধ শিথিলের কথা জানিয়েছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop