আন্তর্জাতিক সময়ভারতের ৭২তম স্বাধীনতা দিবস বৃহস্পতিবার

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
কাশ্মীরীদের অবরুদ্ধ রেখেই স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত। বৃহস্পতিবার ৭২তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করবে দেশটি।
এরমধ্যেই, ভারতের কাশ্মীরবিরোধী পদক্ষেপের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে পাকিস্তান। বিজেপি সরকারের সিদ্ধান্তকে অবৈধ ও অগণতান্ত্রিক বলেছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদকও। তবে মোদি বলছেন, বিরোধী এবং সন্ত্রাসীদের সহযোগীরাই সরকারের কাশ্মীর সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছে। এদিকে, জম্মুর পর কাশ্মীর থেকেও বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করা হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ।
গেলো ৯ দিন ধরে কার্যত অবরুদ্ধ জম্মু-কাশ্মীর। কারফিউ ও জরুরি অবস্থা জারির কারণে আয়-রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় খাদ্য সংকটে পড়েছেন উপত্যকার লাখ লাখ মানুষ। সবেচেয়ে বেশি বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে ভুস্বর্গের গ্রীষ্মকালীন রাজধানী শ্রীনগরে। নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে পাকিস্তান সীমান্তেও। জল ও স্থলপথে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত সেনা। কাশ্মীরীদের অবরুদ্ধ রেখেই সেখানে স্বাধীনতা দিবস আয়োজনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারতীয় প্রশাসন।
জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের মহাপরিচালক দিলবাগ সিং বলেন, ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবসের প্রস্তুতি চলছে। কাশ্মীরের সব জেলায়, সবখানে এ প্রস্তুতি চলছে। আশা করি, ভালোভাবে দিবসটি উদযাপন শেষ করতে পারবো।
ভারতের স্বাধীনতা দিবসকে কালোদিবস আখ্যা দিয়েছে পাকিস্তান। নিজেদের স্বাধীনতা দিবসকে 'কাশ্মীর সংহতি দিবস' হিসেবে পালনেরও ঘোষণা দিয়েছে ইসলামাবাদ। এছাড়া, কাশ্মীরের স্বায়ত্বশাসন ও বিশেষ মর্যাদা বাতিল করায় ভারতের বিরুদ্ধে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। পরিষদে পাঠানো চিঠিতে নয়াদিল্লির পদক্ষেপকে অবৈধ ও জাতিসংঘের প্রস্তাবনার লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করা হয়। ভিডিও বার্তায় পাকিস্তানের সংযত আচরণকে দুর্বলতা না ভাবার জন্য ভারতকে সতর্ক করেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি।
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্র শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ভারত আবারও যদি সামরিক পন্থা অবলম্বন করে তাহলে আত্মরক্ষায় পূর্ণাঙ্গশক্তি দিয়ে তাদের মোকাবিলা করতে বাধ্য হবো আমরা। ভয়াবহ পরিস্থিতি এড়াতে নিরাপত্তা পরিষদকে বৈঠকের আহ্বান জানানো হয়েছে।
উপত্যকায় অবরোধ আরোপের বিষয়ে সরকারের পক্ষ নেয়ায় ভারতের সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছে মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। অবরোধের মাধ্যমে স্থায়ী সমাধান সম্ভব নয় উল্লেখ কোরে কাশ্মীরীদের স্বাভাবিক জীবনযাপনের অধিকার নিশ্চিতেরও দাবি জানানো হয়।
তবে মোদি প্রশাসন বলছে, স্থানীয় বাসিন্দাদের জীবন রক্ষায় বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। জম্মুর বিধিনিষে তুলে নেয়া হয়েছে। কাশ্মীর থেকেও তা তুলে নেয়া হবে বলে জানানো হয়। ৩৭০ ধারা বাতিলকে নয়াদিল্লির অভ্যন্তরীণ বিষয় বলেও দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত।
যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত হর্ষবর্ধন শ্রিংলা বলেন, এটি প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত। এ সিদ্ধান্ত জম্মু কাশ্মীর বা আন্তর্জাতিক সীমানা কোনোভাবেই লঙ্ঘন হয়নি। এছাড়া, মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেছেন, ভারত পাকিস্তান রাজি থাকলে যুক্তরাষ্ট্র মধ্যস্থতা করবে। নয়াদিল্লি যখন থেকে এ প্রস্তাব উপেক্ষা করেছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বিষয়টি পরিষ্কার করেছেন যে, তার প্রস্তাব আর আলোচনার টেবিলে নেই। তিনি বলেছেন, সিমলা চুক্তি এবং লাহোর ঘোষণা অনুযায়ী দ্বিপক্ষীয় সমঝোতায় সংকট সমাধান করার জন্য।
জম্মু-কাশ্মীরের ঘটনা মণিপুরসহ ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় অঞ্চলগুলোর জন্য হুমকি বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন মণিপুর প্রদেশ কংগ্রেস কমিটিরর সভাপতি গায়খানম। তিনি বলেন, কাশ্মরীদের সঙ্গে যা ঘটছে তা মণিপুর, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরা, মেঘালয়ের জনগণের সঙ্গে যে ঘটবে না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। বিজেপি সরকারের ৩৭০ ধারা বাতিলকে অসাংবিধানিক বলে আখ্যা দিয়েছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধীও।
ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী বলেন, যে প্রক্রিয়ায় কাজটি করা হয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে অসাংবিধানিক এবং পুরোপুরি গণতন্ত্রের পরিপন্থী। কংগ্রেস সবসময় সংবিধান ও গণতন্ত্রের পক্ষে। গণতন্ত্র ও সংবিধান রক্ষায় আমাদের লড়াই অব্যাহত থাকবে।
মোদি বলছেন, সাধারণ মানুষ কাশ্মীর ইস্যুতে নেয়া সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছে। তার মতে, এতোদিন ৩৭০ ও ৩৫'র এ ধারা কাশ্মীরীদের জীবনমান উন্নয়নে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিলো। কাশ্মীরের বাসিন্দাদের চাহিদা অনুযায়ী অঞ্চলটির উন্নয়ন করা হবে বলে জানান মোদি। যারা সরকারের এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছেন তাদের, সরকারবিরোধী এবং সন্ত্রাসীদের সহযোগী বলেও আখ্যা দেন তিনি। এরমধ্যেই, পার্লামেন্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জম্মু কাশ্মীর ও লাদাখকে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ধরে নিয়ে আসন পুনর্বিন্যাস শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop