তথ্য প্রযুক্তির সময়স্টার্টআপ কোম্পানির উদ্যোগকে প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞদের সাধুবাদ

সানবীর রুপল

fb tw
উদ্যোক্তাদের বিনা জামানতে ১ থেকে ৫ কোটি টাকা পর্যন্ত সহায়তা দেয়ার বিধান রেখে স্টার্টআপ কোম্পানি গঠনের উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, এমন উদ্যোগ সফল করে তুলতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। আইন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর আগামী দু মাসের মধ্যে নতুন কোম্পানি গঠন সম্ভব হবে বলে জানান তথ্য প্রযুক্তি সচিব। তিনি বলেন, যেকোন ধরনের নতুন আইডিয়াকে স্বাগত জানাবেন তারা।
তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব এন এম জিয়াউল আলম বলেন, 'আমি মনে করি না বেশি সময় লাগবে। আমরা যেন তাড়াতাড়ি করতে পারি সেই প্রচেষ্টাটা থাকবে। আশা করি দুইমাসের মধ্যে আমরা শেষ করতে পারব।'
আমজাদ হোসেন। অন্যরা যখন চাকরি করবেন বলে মনস্থির করছিলেন তখন সরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করা অবস্থায় তিনি চেয়েছিলেন নতুন একটি ব্যবসা করতে। পর্যাপ্ত অভিজ্ঞতা আর অর্থের অভাবে শুরু করতে পারছিলেন না। এরপর চাকরিও করলেন বেশ কিছুদিন। প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সহায়তা পেয়ে চাকরি ছেড়ে শুরু করলেন স্বপ্নবুনন। পোশাক শিল্পের জন্য স্যফটওয়ার তৈরি করলেন। অর্থ সংকটে এখনো তার সফটওয়্যারের বাজারজাত খুব একটা করা হয়নি। নারী উদ্যোক্তা জিনিয়া রহমানের উদ্যোক্তা হবার গল্পটাও বন্ধুর। তরুণ উদ্যোক্তাদের অনেক নতুন আইডিয়া অঙ্কুরে বিনষ্ট হয় টাকার অভাবে ।
গেলো ২ বছর ধরে তথ্য প্রযুক্তি বিভাগের তত্ত্বাবধানে আইডিয়া প্রকল্পের আওতায় প্রযুক্তি নির্ভর স্টার্টআপ প্রকল্পে অর্থায়ন করা হচ্ছে। এই প্রকল্পে এখনো পর্যন্ত ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ৯৬ টি প্রকল্পে অর্থায়ন করা হয়েছে। তবে, উদ্যোক্তাদের সহায়তায় প্রথমবারের মতো মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে স্টার্টআপ বাংলাদেশ কোম্পানি। এই কোম্পানির মাধ্যমে উদ্যোক্তারা জামানত ছাড়াই ১ থেকে ৫ কোটি টাকা নিতে পারবেন।
নতুন এ কোম্পানির প্রধান হবেন তথ্য প্রযুক্তি সচিব। তিনি জানান, আইন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর মন্ত্রিসভার চূড়ান্ত অনুমতির পর কোম্পানি গঠনে পুরোদমে কাজ শুরু করবেন তারা।
 সফল উদ্যোক্তা গড়ে তুলতে প্রকল্পের সম্ভব্যতা যাচাই বাছাই করে অর্থ ছাড় করার পরামর্শ বিশ্লেষকদের। প্রযোজনে রাখতে হবে মনিটরিং সেল। প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ সালাহউদ্দিন সেলিম বলেন, 'অবশ্যই প্রকল্পটা এগোচ্ছে কীভাবে সেটাকে মনিটরিং এ রাখা দরকার। পাশাপাশি শুধু আইটিদের এই স্টার্টআপে অনুদান না দিয়ে আমি মনে করি যেকোন আইডিয়া বেইজ প্রকল্প আসতে পারে।'
৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনে। পরিশোধিত ২০০ কোটি টাকা নিয়ে যাত্রা শুরু করবে নতুন কোম্পানি। পরিচালনা কমিটির বৈঠকে আলোচনা করে গড়ে তোলা হবে নীতি কাঠামো।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop