খেলার সময়এপ্রিলের বিপক্ষে জয় পাওয়া অসম্ভব নয় মনে করেন আবাহনীর খেলোয়াড়রা

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
রক্ষণাত্মক নয় বরং ইতিবাচক ফুটবল খেলেই দ্বিতীয় লেগেও উত্তর কোরিয়ান ক্লাব এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভের বিপক্ষে জয় তুলে নিতে চায় ঢাকা আবাহনী। দলের কোচ আর খেলোয়াড়রা মনে করেন, টার্ফ আর ভিন্ন কন্ডিশন হলেও এপ্রিলের বিপক্ষে জয় পাওয়াটা অসম্ভব নয়। তবে সেক্ষেত্রে রক্ষণের সঙ্গে মধ্যমাঠকেও জ্বলে উঠতে হবে বলে মনে করছেন তারা।
বৃষ্টি ভেজা বিকেলে নিজ ক্লাব মাঠে চনমনে একটা সুখী পরিবারের গল্প। গল্পটা শুধু নতুন ইতিহাস তৈরির-ই নয় বরং সেই ইতিহাসকে আরও সমৃদ্ধ করার।
এএফসি কাপের ইন্টার জোনাল সেমির প্লে অফের প্রথম লেগে যা করলো ঢাকা আবাহনী, এর আগে সে কৃতিত্ব ছিলো দক্ষিণ এশিয়ার মাত্র একটি ক্লাবের। ইনজুরি, নিষেধাজ্ঞা কিংবা শক্তিশালী প্রতিপক্ষের তকমাকে চূর্ণ করে' ৪-৩ গোলের স্বস্তির জয়ে, প্রবল একটা বার্তা দিয়ে রাখল প্রতিপক্ষ ক্লাব এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভকে।
তবে ম্যাচ জিতলেও কাজ হয়েছে অর্ধেকই। অবশ্য কোচ মনে করেন এখনও বাকি ৭০ শতাংশ কাজ। বিশেষ করে পিয়ংইয়ংয়ের ভূতুরে পরিবেশ আর আর্টিফিশিয়াল টার্ফের সঙ্গে মানিয়ে নেয়াটাই হবে দ্বিতীয় লেগের বড় চ্যালেঞ্জ। তাইতো ম্যাচ জয়ের রোমাঞ্চকে পাশ কাটিয়ে এবার, শিষ্যদের তিনি দিচ্ছেন ভিন্ন দীক্ষা।
ঢাকা আবাহনীর কোচ মারিও লেমোস বলেন, আমরা আমাদের দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন। আমরা জানি দেশের সবাই ফিরতি পর্বের ম্যাচটার দিকে তাকিয়ে আছে। তবে ওদের মাটিতে কাজটা মোটেও সহজ হবে না। তাইতো এ জয় নিয়ে খুব একটা উৎফুল্ল নই আমি। পরের ম্যাচে ভালো করেই উৎযাপনটা করতে চাই।
এপ্রিল টুয়েন্টি ফাইভকে প্রথম লেগে হারানোয় দলের সবাইকে ১০ লাখ টাকা বোনাস দিয়েছে আবাহনী ক্লাব কর্তৃপক্ষ। চমকপ্রদ খবর আছে আরো। দ্বিতীয় লেগে জয় নয় বরং ড্র করলেও ফাইনালে ওঠার সঙ্গে ২০২০ এএফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্লে অফে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে ঢাকার জায়ান্টরা। আর তা হলে' বাতাসে গুঞ্জন দেশের ক্লাব ইতিহাসের সবচাইতে বড় বোনাস অপেক্ষা করছে আবাহনীর ফুটবলারদের জন্য। তবে সে সব নিয়ে আপাতত ভাবছেন না তারা। সাধ্যের সবটুকু উজাড় করে দিয়ে এ ম্যাচে লড়তে চান ক্লাবের জন্য, লড়তে চান দেশের জন্য।
ঢাকা আবাহনীর মিডফিল্ডার মামুন মিয়া বলেন, বোনাসটা বড় কথা না। এটা নিজেদের ক্যারিয়ার এবং দেশের জন্য বড় অর্জন হবে।
ঢাকা আবাহনীর ডিফেন্ডার এলদিন নাসের বলেন, আর্টিফিশিয়াল টার্ফে খেলটা কিছুটা সমস্যার হলেও বিষয়টা এমন নয় যে মূল মাঠের সঙ্গে খুব বেশি পার্থক্য সেখানে। আমার মনে হয় আমরা এ ম্যাচটিতেও ইতিবাচক ফলাফল অর্জন করতে পারবো। আর সেটা অবশ্যই জয়।
একদিন বিরতি শেষে ২৪ আগস্ট পিয়ংইয়ংয়ের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করবেন মামুনুল-সাদরা। ভিসা জটিলতায় একদিন পর সানডে যোগ দিবেন দলের সঙ্গে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop