বাণিজ্য সময়পেঁয়াজের ঝাঁঝে অস্থির পাইকারি বাজার

সময় সংবাদ

fb tw
ঈদের পর আবারো অস্থির দেশের পেঁয়াজের বাজার। পাইকারি পর্যায়ে সবধরনের পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ১০-১৫ টাকা। হঠাৎ করে দাম বৃদ্ধির জন্য সিন্ডিকেটকে দায়ী করছেন পাইকাররা। 
পেয়াজের পাশাপাশি বেড়েছে আটা, ময়দা, চিনি ও খোলা সয়াবিনের দর। উর্ধ্বমুখী মসলার বাজারে আসেনি কোনও পরিবর্তন। 
ঈদের আগে রাজধানীর মোহাম্মদপুর পাইকারি কৃষি মার্কেটে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ৩৩-৩৪ টাকা। আর আমদানি করা পেঁয়াজের দর ছিলো ২৬-২৭ টাকা কেজি। অথচ এ সপ্তাহে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫-৪৬ টাকায়। আর আমদানি করা পেঁয়াজের দর উঠেছে ৪২ টাকা পর্যন্ত। 
আমদানিকারকদের বরাত দিয়ে পাইকাররা বলছেন, লম্বা ছুটির বিষয়টি মাথায় রেখে ঈদের আগেই দেশে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত মজুদ করা হয়। এ অবস্থায় দাম বাড়ার কোন কারণ দেখছেন না তারা। 
পেঁয়াজের দাম বাড়লেও আমদানি করা রসুনের দাম কমেছে কেজিতে প্রায় ২৫-৩০ টাকা।
তবে, স্বস্তি নেই আটা, ময়দা ও চিনির দরে। প্রত্যেকটি পণ্যেই কেজিতে দাম বেড়েছে ২ টাকা। বোতলজাত সয়াবিনের দর অপরিবর্তিত থাকলেও কেজিতে ৩-৪ টাকা বেড়েছে খোলা সয়াবিনের দাম। বাড়া-কমা নেই ডালের বাজারে।
চালের বাজারে মিনিকেট প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৪২ টাকা; আটাশ ৩০-৩২ টাকা; গুটিস্বর্ণা ২৯-৩০ টাকা। তবে পাইজাম চাল কেজিতে ১-২ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩১-৩২ টাকায়।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop