তথ্য প্রযুক্তির সময়অনিরাপদ উড়োজাহাজ কোনগুলো?

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
উড়োজাহাজ দুর্ঘটনার বিষয়ে চিন্তা করলেই আতকে ওঠে প্রায় সকলেই। তারপরেও থেমে থাকে না কোনোকিছুই। দুর্ঘটনা যেমন শুধুই দুর্ঘটনা। ঠিক তেমনি কিছু সচেতনাতা আর কিছু পদক্ষেপ কমিয়ে আনতে পারে দুর্ঘটনায় ক্ষতির পরিমাণটা। উড়োজাহাজ দুর্ঘটনা বা ঝুঁকি এর অন্যতম কারণই হলো বিমান চালকেরা। মূলত মানুষ ও যন্ত্রের মধ্যে পারস্পরিক বোঝাপড়ার ভুল থেকেও দুর্ঘটনা ঘটে।
এছাড়াও পাইলটের মানসিক অবস্থার উপরও দুর্ঘটনা অনেকটা নির্ভর করে। ২০১৬ সালের তথ্য অনুযায়ী জার্মানির জেএসিডিইসি ইনস্টিটিউটের এক গবেষণায় ৬০টি এয়ারলাইন্সের মধ্যে কয়েকটি নিরাপদ এবং অনিরাপদ বিমানের তালিকা প্রকাশ করে।
যদিও জেএসিডিইসি’র গবেষণা কিছুটা সমালোচনার মুখে পড়ে। কেননা, টেকনিক্যাল কোনো ত্রুটির কথা তারা উল্লেখ করেনি। এমনকি মানব আচরণের সমস্যার কথাও নেই সেখানে। আবহাওয়া বা সন্ত্রাসী হামলার উল্লেখ নেই, যেমন, সন্ত্রাসবাদ বিমানের নিরাপত্তার জন্য বর্তমানে সবচেয়ে বড় হুমকি। এর কারণে ১০ শতাংশ দুর্ঘটনা ঘটেছে। বিমান নিরাপত্তা বিশ্লেষক সিমন অ্যাশল জানান সন্ত্রাসের ভয় দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ
এ বিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে জামার্নীর সংবাদ সংস্থা ডয়চে ভেলে। সে প্রতিবদনের সূত্র ধরেই অনিরাপদ বিমানের তালিকা দেওয়া হলো।
চায়না এয়ারলাইন্স: ২০১৬ সালে ৩৭০ কোটি যাত্রী তাদের বিমানে যাতায়াত করেছে। যাঁরা চায়না এয়ারলাইন্সে যাতায়াত করেছেন তাঁদের অনেকেরই মনে হয়েছে এটি একটি অনিরাপদ পরিবহন। তাই ৬০ টি এয়ারলাইন্সের তালিকায় তাইওয়ানিজ এয়ারলাইন সবচেয়ে অনিরাপদ হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।
কলম্বিয়ার অ্যাভিয়াঙ্কার: গত ৩০ বছরের নিরাপত্তার উপর ভিত্তি করে ঐ তালিকা করা হয়েছে৷ বিমান কতবার দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে, কত যাত্রী নিহত হয়েছে, বিধ্বস্ত হয়েছে কিনা, এছাড়া কত কিলোমিটার যাত্রা করেছে এবং যাত্রী সংখ্যা কত- এসবের ভিত্তিতে তালিকা করা হয়েছে৷ এসবের ভিত্তিতে তাদের ০ থেকে ১.০০ পয়েন্ট দেয়া হয়েছে৷ কলম্বিয়ার অ্যাভিয়াঙ্কার স্কোর দাঁড়িয়েছে ০.৯১৪৷ ২০১৬ সালের সবচেয়ে খারাপ বিমানের মধ্যে দ্বিতীয় অবস্থান তাদের।
ইন্দোনেশিয়া এয়ারলাইন্স: এই এয়ারলাইন্সটি বিধ্বস্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। গারুদা ইন্দোনেশিয়ার স্কোর ০.৭৭৭৷ খারাপ বিমানের তালিকায় এর অবস্থান তৃতীয়৷ ১৯৫০ সালে চলাচল শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত এই এয়াররলাইন্স ৪৭টি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে, দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে মোট ৫৮৩ জন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop