আন্তর্জাতিক সময়যুদ্ধবিরতির শর্তে তালেবানের সঙ্গে বসতে চায় আফগান সরকার

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
তালেবানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে আফগান সরকার প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। তবে যুদ্ধবিরতি ছাড়া কোনো ধরনের আলোচনা সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
এদিকে শনিবার এক টুইট বার্তায় আফগানিস্তানের সশস্ত্রগোষ্ঠী তালেবানের সঙ্গে পূর্বনির্ধারিত শান্তি আলোচনা বাতিল করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত সপ্তাহে কাবুলে এক হামলায় মার্কিন সেনা নিহতের ঘটনায় তালেবানের দায় স্বীকারের পর এ সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তবে ট্রাম্পের এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন মার্কিন সামরিক বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তারা।
তারা বলছেন, ২০০১ সালে শুরু হওয়া আফগান যুদ্ধ বন্ধের এখনই সঠিক সময়। ইরাক যুদ্ধে দায়িত্ব পালন করা প্রবীণ এ মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা মনে করেন, আফগান যুদ্ধ জিইয়ে রাখা যুক্তরাষ্ট্রের জন্যই ক্ষতিকর।
সাবেক মার্কিন সামরিক কর্মকর্তা জেরেমি বাটলার বলেন, আমাদের সেনারা আফগানিস্তানে যুদ্ধ চালিয়ে যাবে নাকি বন্ধ করবে একজন সামরিক কর্মকর্তার কাছে এ ধরনের উত্তর দেয়া খুবই কঠিন। তবে আপনাকে দেখতে হবে, সেখানে আমাদের কত সংখ্যক সেনা প্রাণ হারিয়েছেন। শান্তি আলোচনা খুবই জটিল একটা বিষয়। সুতরাং আমি মনে করি, এ আলোচনায় জটিল বিষয়গুলোকে আগে গুরুত্ব দিতে হবে। সেগুলো সমাধান করতে হবে। দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা থাকতে হবে। কীভাবে আমাদের সেনাদের ক্ষয়ক্ষতি কমানো যায় সে বিষয়টি গুরুত্ব দিতে হবে।
সাবেক মার্কিন সামরিক কর্মকর্তারা এমন পরামর্শ দিলেও নিজের সিদ্ধান্তে অটল প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তালেবানের সঙ্গে শান্তি আলোচনার মৃত্যু ঘটেছে মন্তব্য করে ট্রাম্প বলেন, আফগান যুদ্ধের অবসান নিয়ে তালেবানের সঙ্গে নতুন করে আলোচনায় বসতে তার কোনো আগ্রহ নেই।
ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমি এটি নিয়ে আর আলোচনা করতে চাই না। তারা মনে করে, মানুষকে হত্যা করে সবকিছু আদায় করা সম্ভব। আর সেজন্য প্রতিনিয়ত মানুষকে হত্যা করে যাচ্ছে। তাদের সেভাবেই জবাব দেয়া হবে।
যুক্তরাষ্ট্র আলোচনা বাতিল করলেও তালেবানের সঙ্গে বৈঠকে আগ্রহী আফগান সরকার। সেনাবাহিনীর এক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি বলেন, তালেবানের সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রস্তুত রয়েছে তার সরকার।
আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি বলেন, আফগানিস্তান আজ চরম সঙ্কটের মুখে। আমাদের সামনে দু’টি বড় আয়োজন রয়েছে। এক শান্তি আলোচনা, আর দ্বিতীয়টি হলো দেশের নির্বাচন। আমরা ইতোমধ্যে বলে দিয়েছি, আলোচনার জন্য কোনো সীমারেখা থাকবে না। কিন্তু যুদ্ধবিরতি ছাড়া কোনোভাবেই শান্তি আলোচনা সম্ভব নয়। এ ছাড়া তালেবানকে হামলা বন্ধ করতে হবে।
দীর্ঘ ১৮ বছরের যুদ্ধ অবসানের লক্ষ্যে গত বছরের জুন থেকে কাতারের রাজধানী দোহায় মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনা শুরু করেন তালেবান কর্মকর্তারা। গত সপ্তাহে এরই পরিপ্রেক্ষিতে একটি শান্তি চুক্তিতেও একমত হয় দুই পক্ষ।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop