প্রবাসে সময়মালয়েশিয়ায় বিমানবন্দর থেকেই ফেরত পাঠানো হচ্ছে পর্যটকদের

মো. আবদুল কাদের

fb tw
somoy
বৈধ ভিসা, টিকিট ও হোটেল বুকিং থাকার পরও মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট (কেএলএআই) থেকে প্রতিদিন ফেরত পাঠানো হচ্ছে বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের। এদের মধ্যে ব্যবসায়ী, ছাত্র এবং প্রকৃত পর্যটকের সংখ্যাই বেশি। আবার অনেক পর্যটক মুখ খুলছেন না মান-সম্মানের ভয়ে। মালয়েশিয়া প্রবেশে ব্যর্থ হওয়া নাগরিকদের মধ্যে অধিকাংশই ইন্দোনেশিয়ান, তারপর রয়েছে বাংলাদেশ ও চীন।
সম্প্রতি অবৈধ অভিবাসনবিরোধী অভিযান ঘিরে এ সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। ভ্রমণসহ নানা প্রয়োজনে যারাই মালয়েশিয়ায় ঢোকার চেষ্টা করছেন, সন্দেহ হলেই তাদের ফেরত দেয়া হচ্ছে নিজ দেশে আবার অনেককে আটকে দেয়া হচ্ছে। ফলে বৈধ কাগজ থাকার পরও অনেক বাংলাদেশিকেও জেল খেটে দেশে ফিরতে হচ্ছে।
অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক খাইরুল যাইমি দাউদ বলেন, চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে ১০ সেপ্টেম্বর এ যাবত বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ৩০ হাজার পর্যটক কে মালয়েশিয়া প্রবেশে অসম্মতি জানিয়েছে দেশটির অভিবাসন বিভাগ।
তিনি আরও জানান, ইমিগ্রেশনে পর্যটকদের যখন মালয়েশিয়ার স্থান ও কাল সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় তার উত্তরে পর্যটকরা সঠিক স্থানের নাম বলতে অপারগতা প্রকাশ করে। এছাড়াও সোস্যাল ভিজিট পাসের জন্য দূতাবাস ৩০ দিনের ভিসা দিলেও ইমিগ্রেশনে তাদের অনেকের কাছে ব্যয় খরচ মাত্র ২’শ থেকে ৩’শ মালয়েশিয়ান রিঙ্গিত পাওয়া যায়। যার ফলে এসব পর্যটকদের মানবপাচার সন্দেহে স্ব দেশে ফেরত পাঠানো হয়।
এদিকে, পরিসংখ্যান অনুসারে দেখা যায় চলতি বছরের জানুয়ারী থেকে ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশব্যাপী ১২ হাজার ৪৪৮টি অভিযান সম্পন্ন করা হয়েছে এবং ১ লাখ ৪৬ হাজার ৭৭৭ জন নাগরিকের উপর তল্লাশি চালানো হয়। তাদের মধ্যে ৩৬ হাজার ৬৬৪ জনকে অবৈধ অভিবাসী হিসেবে আটক করা হয়।
এই সময়ে অবৈধ অভিবাসীদের চাকরি দেয়া অথবা তাদেরকে সহায়তা করার কারণে ৯’শ ২২ জন চাকরিদাতাদেরও আটক করা হয়।
আটককৃতদের মধ্যে রয়েছে ১২ হাজার ১৪২ জন ইন্দোনেশিয়ান, ৮ হাজার ৫৬ জন বাংলাদেশি, ৩ হাজার ৬৩৫ জন মিয়ানমার, ৩ হাজার ১৪৯ জন ফিলিপিন, ২ হাজার ১২৭ জন থাই, ২ হাজার ৬ জন ভারতীয়, ১ হাজার ৪৩৬ জন পাকিস্থান, ১ হাজার ৩১৩ জন ভিয়েতনাম, ৮শ’ জন চীনা, ৭৬৫ জন নেপালিস এবং ১ হাজার ২১৫ জন অন্যান্য দেশের নাগরিককে আটক করা হয়।
এছাড়া, দেশটিতে যারা স্থানীয়দের বিয়ে করেছে তারা তাদের স্বামী অথবা স্ত্রীর নামে থাকা লাইসেন্স দিয়ে ব্যবসা করতে পারবে বলেও অভিবাসন বিভাগ জানায়।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop