বিনোদনের সময়নির্মাতা শামীমের প্রশ্ন, তারকা হয়ে লাভ কী আপনাদের?

বিনোদন প্রতিবেদক

fb tw
somoy
নির্মাতা শামীমুল ইসলাম শামীম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলচ্চিত্র শিল্পের চলমান সংকট ও নিজস্ব মত প্রকাশ করেছেন। তিনি সময়ের জনপ্রিয় দুই চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক ও বাপ্পী চৌধুরীকে নিয়ে বেশকিছু যুক্তিসহ পরামর্শ দিয়েছেন। 
পাঠকদের জন্য তা হুবহু তুলে ধরা হলো। 
‘বাপ্পী চৌধুরী ও সাইমন সাদিক। বাংলা চলচ্চিত্রের এই সময়ের উজ্জল তারকা। আমার খুব কাছের ভাই, বন্ধু আর সহকর্মী। বেশ কিছুদিন ধরে খুব লক্ষ্য করছি- তাদের ক্যারিয়ার খুব একটা ভালো যাচ্ছে না। তারা হয়তো বলবে- পুরো চলচ্চিত্রের অবস্থাই তো ভালো যাচ্ছে না। আমার “কিছু কথা” এখানেই।’
চলচ্চিত্রশিল্পের চলমান সংকট প্রসঙ্গে নিজের ব্যক্তিগত যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শামীমুল ইসলাম শামীম লিখেছেন- ‘এই যে ভালো যাচ্ছে না, এখানে কি আপনাদের কোনো দায় বা দায়িত্ব নেই? কি করছেন আপনারা ভালো করার জন্য? বা কেন করছেন না? ইন্ডাস্ট্রিতে শাকিব খানের পরেই আপনাদের অবস্থান। কেন ভুলে যান এটা? নাকি নিজেদের নিজেরাই অসহায় ভেবে হাত-পা গুটিয়ে বসে থাকার পণ করেছেন? আমরা তা ভাবি না। এখনো শাকিব খানের পরে আমরা আপনাদেরই ভাবি। আপনারা তারকা এটা দেশের আপামর দর্শকমাত্রই জানে। জানেন না শুধু আপনারা। এটা আপনাদের দূর্ভাগ্য না। আপনাদের দুর্বলতা। শাকিব খান নিজের অবস্থান ধরে রাখতে প্রতিনিয়ত প্রচণ্ড সোচ্চার।’
বাপ্পি ও সাইমনের কাছে প্রশ্ন রেখে তিনি আরও লিখেছেন- ‘আপনারা আপনাদের ক্যারিয়ার ধরে রাখতে কতখানি সোচ্চার? আমার ভীষণ সন্দেহ আপনাদের নিয়ে। পাশাপাশি কষ্টও হয়। একজন শাকিব খান একাই এত বড় ইন্ডাস্ট্রির বোঝা বয়ে বেড়াচ্ছেন। প্রতিদিন একজন নতুন ইনভেস্টর ইন্ডাস্ট্রিতে নিয়ে আসছেন। না হলে নিজেই ইনভেস্ট করে টিকে থাকার লড়াইয়ে একটিভ থাকছেন। তার বদৌলতে আরও শতজন ইন্ডাস্ট্রির শিল্পী-কর্মী কাজ করার সুযোগ পাচ্ছেন। বছরের পর বছর ধরে প্রতি ঈদে যে করেই হোক নিজের ছবি পেক্ষাগৃহে নিয়ে আসছেন। আপনারা কী করছেন? তারকা তকমা গায়ে সেঁটিয়ে নিভৃতে পড়ে আছেন কেন? কেন চ্যালেঞ্জ নিচ্ছেন না- যে করেই হোক এই ঈদে শাকিব খানের সঙ্গে আমাদের ছবিও সিনেমা হলে আসবেই! আসতেই হবে। কেন ঝাঁপিয়ে পড়ছেন না এ লক্ষ্যে? তাহলে তারকা হয়ে লাভ কি আপনাদের? আপনারা কি পারেন না এই তারকা ইমেজ কাজে লাগিয়ে ২/৪ টা ইনভেস্টর ক্রিয়েট করতে?’
এই নির্মাতা তার স্ট্যাটাসে আরও লিখেছেন, ‘যদু, মধু মার্কা কিছু হিরো কিছু প্রডিউসার জুটিয়ে ধুমছে কাজ করে যাচ্ছেন। আলতু-ফালতু কিছু ছবি দিয়ে তারা ইন্ডাস্ট্রির আরও ১২টা বাজিয়ে দিচ্ছেন! আপনারা তো অভিজ্ঞ! অনেক গল্প করেছেন। অনেকের সঙ্গে কাজ করেছেন? অনেক ধরনের অনেক ছবি করেছেন। এই প্রডিউসারগুলো যদি আপনারা আনতেন, ভেবে দেখুন তাহলে কত ভালো ভালো মুভি ইন্ডাস্ট্রি পেতো? কেন আপনারা সেটা পারেননি বা পারছেন না? সময় এখনও ফুরিয়ে যায়নি ভাই আমার। প্লিজ আজ থেকেই ঝাঁপিয়ে পড়ুন। চ্যালেঞ্জ নিয়ে এগিয়ে যান। আমার বিশ্বাস দারুণ কিছু হতে বাধ্য। তারকারা যখন কোনো ইনভেস্টরকে কিছু বলেন- সেটার গ্রহণযোগ্যতা অনেক বেশি হয়। সেটাকে ইন্ডাস্ট্রির কাজে লাগান। আশা করি ঠকবেন না। তারকা তকমা দিয়ে শুধু বিয়ে বাড়িতে আর বন্ধুদের আড্ডায় সেলফি দিলে হবে না। কাজের মতো কাজ করুন। নিজে বাঁচুন। ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচাতে প্রতীজ্ঞা করুন।’
সবশেষে তিনি লিখেছেন, ‘গল্প, চরিত্র আর পরিচালক নির্বাচনে আরেকটু পেশাদারিত্বের পরিচয় দিন। আপনাদের প্রিভিয়াস রেকর্ড খুব একটা সুখকর নয়। যাচ্ছে তা গল্প আর মেকিং এর ছবিগুলো আপনেদেরকে পিছিয়ে দিয়েছে কয়েকগুণ। সেই পুরনো ধারণা, সেই নাচে গানে ভরপুর এর যুগ এখন বস্তা পঁচা! এগুলো এড়িয়ে চলুন, নতুনরা আসছে। এদের চিন্তা ভাবনা অফুরন্ত, আধুনিক। এদের নিয়ে এগুনোর চেষ্টা করুন। আপনারা নতুনদের সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে নিয়ে যাবেন এক নতুন উচ্চতায়। এটা আমার আজকের প্রত্যাশা।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop