মহানগর সময়নাশকতাকারীদের খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ওয়েব ডেস্ক

fb tw
somoy
বিএনপি ভবিষ্যতে সরকার পতন আন্দোলনে নামার শক্তি, সাহস পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নাশকতার সাথে জড়িতদের খুঁজে বের করে শাস্তির ব্যবস্থা করতে মাঠ প্রশাসনকে নির্দেশ দেন তিনি।
সোমবার মন্ত্রীসভার বৈঠক শেষে কয়েকটি জেলার প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে ভিডিও কনফারেন্সে এসব একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
এভাবেই নাটোর ও ফেনী জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সাথে সচিবালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নানা নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিভাগ এবং চাঁদপুর, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার শীর্ষ কর্মকর্তারা অনলাইনে সংযুক্ত ছিলের। প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এসব জেলা প্রশাসক, জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে জেলার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড এবং আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির খোঁজ খবর নেন।
আন্দোলনের নামে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চালিয়ে ‘বিএনপির শুধু শক্তিই ক্ষয় হয়েছে’ বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।
বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে তিনি বলেন, “জনগণকে খুন করে তার কি অর্জন? উনাকে কোর্টেও যেতে হয়েছে। সারেন্ডার করতে হয়েছে। আবার ঘরেও ফিরে যেতে হয়েছে। আওয়ামী লীগ কিন্তু বহাল তবিয়তেই আছে।
“আশা করি ভবিষ্যতে আর কোমরে এত জোর হবে না যে, আবার সরকার নামানোর কথা চিন্তা করতে পারবে।”
প্রশাসনের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, “জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড যারা করেছে, যারা মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে এবং প্রত্যেক এলাকায় যারা অপরাধে জড়িত, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বলব, তাদের খুঁজে খুঁজে বের করতে হবে, তাদের বিচার করতে হবে।”
দেশের মানুষের জানমালের নিরাপত্তার জন্যই ‘এ ধরনের অপরাধীদের’ শাস্তি হওয়া প্রয়োজন বলে তিনি উল্লেখ করেন।
উন্নয়ন প্রকল্পসমূহ দ্রুত বাস্তবায়নের পরামর্শ দিয়ে এসময় শেখ হাসিনা বলেন, জনগণের চাহিদার কথা মাথায় রেখে ভবিষ্যতে জেলা ভিত্তিক বাজেট প্রণয়ন করা হবে।
এর আগে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রীপরিষদের নিয়মিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে হস্ত কারুশিল্প নীতি মালা ২০১৫ এর খসড়ার অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে শেষ মন্ত্রী পরিষদের সচিব সাংবাদিকদের জানান, বৈশাখী উৎসবকে কেন্দ্র করে এখন থেকে ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর কর্মকর্তারা ৩ দিনের ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করতে পারবে।
তিনি বলেন, চৈত্র মাসের শেষ দিনের আগের দিন এবং ২রা বৈশাখ এই দুটি দিন পার্বত চট্টগ্রাম অঞ্চলে ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করতে পারবে।
এছাড়া মন্ত্রী সভা বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন বিষয়ে ত্রৈমাসিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয় বলেও জানান তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop