আন্তর্জাতিক সময়সৌদির তেলক্ষেত্রে হামলার অনুমোদন দিয়েছিলেন খোমেনি!

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
সৌদি আরবের তেল শোধনাগারে ড্রোন হামলার জন্য ইরানকেই দায়ী করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। যদিও এমন অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করছে  ইরান। তারা বলছে, ইয়েমেনে সৌদি আরবের আগ্রাসনের জবাবে দেশটির জনগণ এ প্রতিশোধমূলক হামলা চালিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্র ঢালাও অভিযোগ দিয়ে আসলেও এবার কিছু সুনির্দিষ্ট তথ্য দিলেন ট্রাম্প প্রশাসনের এক কর্মকর্তা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন এ কর্মকর্তা একটি টিভি চ্যানেলের কাছে দাবি করেছেন, ওই হামলা চালানোর ব্যাপারে সায় দিয়েছিলেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খোমেনি।
শুরুর দিকে মার্কিন পররাষ্ট্র সচিব মাইক পম্পেও বলেছেন, শনিবারের ওই হামলা যুদ্ধ ছাড়া আর কিছু নয়।
শুক্রবার জেদ্দায় সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সঙ্গে সাক্ষাতের পর পম্পেও বলেন, ‘আত্মরক্ষার সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে সৌদির।’
আর ঠিক এ মুহূর্তে মার্কিন চ্যানেলটি জানিয়েছে, খোমেনি নাকি হামলায় সম্মতি দিয়েছিলেন এ শর্তে যে, তেল শোধনাগারে ড্রোন হানার পর যেন কোনো অবস্থাতেই বোঝা না যায়, তাতে ইরানের কোনো ভূমিকা রয়েছে।
তবে এ তথ্যের উৎস সম্পর্কে কিছু জানায়নি চ্যানেলটি।
পম্পেওর মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জরিফও বলেছেন, আমেরিকা এবং তার উপসাগরীয় মিত্র দেশ ইরানে হামলার কথা ভাবলে তারাও চুপ থাকবেন না।
তিনি বলেন, ‘আমরা যুদ্ধ চাই না। কিন্তু আত্মরক্ষার স্বার্থে আমরাও এক মুহূর্ত ভাবব না।’

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop