বাংলার সময়মধুমতি নদীতে বিলীন মহম্মদপুরের শতাধিক বাড়িঘর

সময় সংবাদ

fb tw
মাগুরার মধুমতি নদীর তীব্র ভাঙনের কবলে পড়েছে মহম্মদপুর উপজেলার কয়েকটি গ্রাম। ভাঙনে ভিটেমাটি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন যাপন করছেন নদী তীরবর্তী মানুষ। এ অবস্থায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধীদের কোন সহযোগিতা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ তাদের। তবে ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। 
প্রতি বছরই ভাঙ্গনের শিকার হয় মধুমতি নদীর কোলঘেষা মহম্মদপুর উপজেলার হরেকেষ্টপুর, মহেষপুর, ঝামা ও আড়মাঝি গ্রাম। বন্যার পানি কমার সাথে সাথে মাগুরার মধুমতি নদীর তীরে কয়েকটি গ্রামে দেখা দিয়েছে তীব্র ভাঙ্গন।
এক সপ্তাহের ব্যবধানে নদী গর্ভে বিলীন হয়েছে কয়েকটি গ্রামের ভিটেমাটি ও বসতঘর। এতে নিঃস্ব হয়ে পড়েছেন অন্তত অর্ধশত পরিবার। এ অবস্থায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের পাশে পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ ভাঙন কবলিতদের ।
একজন বলেন, এই নদীতে চার-পাঁচ বার বাড়ি ভেঙে গেছে, এখন কোথায় যাবো, কি করবো।
আরেকজন বলেন, দুইদিন আগেও আমার ঘর দরজা ছিলো, এখন আমার ঘর দরজা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। 
ভুক্তভোগী এক নারী বলেন, চেয়ারম্যান মেম্বার ভোটের সময় আসে, এখন কেউ আসতেছে না।
তবে ভাঙ্গন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দিলেন মাগুরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ সরোয়ার হোসেন সুজন।
তিনি বলেন, জানানো হয়েছে, তারা প্রতিবেদন দিলে আমরা উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে প্রেরণ করবো। তবে ভাঙন বেশি দেখা দিলে, এর জন্য এক বড় প্রকল্পের প্রস্তাব পেশ করতে হবে। তাই এই বিষয় নিয়ে কাজ করছি।
ভাঙনে এ বছর মধুমতি নদীগর্ভে বিলীন হয়েছে মহম্মদপুরের শতাধিক বাড়িঘর, ফসলি জমি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop