আন্তর্জাতিক সময়তুর্কি অর্থনীতি ধ্বংসের হুমকি ট্রাম্পের

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর সেখানে অভিযান চালানোর বিষয়ে তুরস্ককে সতর্ক করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সীমা অতিক্রম করলে তুর্কি অর্থনীতি ধ্বংস করে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন তিনি।
এদিকে, উত্তর সিরিয়া থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করায়, তুরস্কের সামরিক অভিযানের পথ সুগম হলো বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় ব্যক্ত করেছেন কুর্দি বিদ্রোহী গোষ্ঠী সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্স-এসডিএফ।
তুরস্কের কুর্দি-বিরোধী অভিযান শুরুর আগে সোমবার সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় সামরিক ঘাঁটি থেকে নিজেদের সেনা প্রত্যাহার করে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। নিরাপদ অঞ্চল গড়ে তুলতে এতদিন মার্কিন এবং তুর্কি সেনারা যৌথ টহল দিয়ে আসলেও এরদোয়ান সরকারের কুর্দি-বিরোধী অভিযানের ঘোষণার পর কারো পক্ষে অবস্থান না নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ট্রাম্প প্রশাসন।
যুক্তরাষ্ট্রের ওই সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা জানিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সিরীয় কুর্দিরা। মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রতিবাদে এদিন বিক্ষোভ র‌্যালি বের করে তারা। তুর্কি সেনাদের হাত থেকে কুর্দিদের রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্রকে সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের আহ্বান জানান বিক্ষোভকারীরা। নতুন করে সংঘাত সৃষ্টি হলে অঞ্চলেটিতে আবারো জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের উত্থানের আশঙ্কা করছেন তারা।
স্থানীয়রা বলছেন, যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়লে এই অঞ্চলের মানুষ সবার আগে আক্রান্ত হবে। ঘর-বাড়ি ছেড়ে আমাদের পালিয়ে যেতে হবে। সিরিয়ায় নতুন করে সঙ্কট দেখা দেবে। আমরা কোথায় যাবো?
রাশিয়ার সবুজ সংকেত পেয়েই তুরস্ক অভিযান চালানোর সাহস পেয়েছে। অথচ যুক্তরাষ্ট্র তুরস্কের কথায় সায় দিয়ে যাচ্ছে।
তুরস্কের যেকোনো হামলা প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছে কুর্দি বিদ্রোহী গোষ্ঠী সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্স-এসডিএফ।
এসডিএফ এর মুখপাত্র গ্যাবরিয়েল কেনো বলেন, তুর্কি সেনাদের হামলা নতুন নয়। তারা বছরের পর বছর আমাদের ওপর হামলা চালিয়ে আসছে। তাদের হামলার সমোচিত জবাব দিতে এসডিএফ সদস্যরা পুরোপুরি প্রস্তুত।
মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘটনায় ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনা করেছেন খোদ রিপাবলিকান সিনেটর মিচ ম্যাককোনেল। রাশিয়া, ইরান এবং সিরিয়ার আসাদ সরকারকে সুবিধা দিতেই ট্রাম্প এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে মন্তব্য তার।
ঘরে-বাইরে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়লেও ভিন্ন কথা বলছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেনা প্রত্যাহারকে বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত উল্লেখ করে ট্রাম্প বলেন, সিরিয়ায় আইএস নির্মূলে এসডিএফ-কে সমর্থন দেয়া অনেক ব্যয়বহুল হওয়ায় এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তুর্কি অভিযানে কোনো মার্কিন সেনা হতাহত হলে দেশটিকে চরম মূল্য দিতে হবে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ট্রাম্প।
ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, প্রেসিডেন্ট এরদোয়ানকে বলেছি, আমার দেশের জনগণের কোনো ক্ষতি যেন না হয়। তারা যদি সীমা লঙ্ঘন করে তাহলে এর পরিণতি ভালো হবে না। পিকেকের সঙ্গে তুরস্কের বিরোধ বহু পুরানো। এজন্য প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা দায়ী। পিকেক-তুরস্ক যুদ্ধ তিনিই শুরু করে দিয়েছিলেন।
এদিকে, সন্ত্রাস-বিরোধী অভিযানে বেসামরিক নাগরিকদের রক্ষায় তুরস্ককে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। কুর্দি-বিদ্রোহীদের ওপর অভিযানের বিষয়ে এরদোয়ান সরকারকে সতর্ক করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop