আন্তর্জাতিক সময়উ. কোরিয়া নিয়ে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসছে জাতিসংঘ

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ইস্যুতে রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ। জার্মানির আহ্বানে যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের সমর্থনে মঙ্গলবার মুখোমুখি হচ্ছে ১৫ সদস্যের পরিষদ।
এরমধ্যেই, ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে পশ্চিমাদের উদ্বেগ উত্তর কোরিয়ার সার্বভৌমত্বের জন্য মারাত্মক হুমকি বলে সতর্ক করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত কিম সং।
এদিকে, পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে পুনরায় আলোচনা যুক্তরাষ্ট্ররে ওপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া।
গেলো বুধবার পানির নিচ থেকে ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। এরপরই পিয়ংইয়েরের ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের নিন্দা জানিয়ে করণীয় নির্ধারণে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে রুদ্ধদ্বার বৈঠকের আহ্বান জানায় জার্মানি। বার্লিনের আহ্বানে সমর্থন জানায় পরিষদের স্থায়ী প্রতিনিধি যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স।
মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে কী ধরনের ব্যবস্থা নেয়া যায় সে বিষয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনা করবেন নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা।
ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ইস্যুতে পশ্চিমাদের পিয়ইয়ংবিরোধী পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে উত্তর কোরিয়া। এ ধরনের বৈঠক আহ্বান এবং তাতে সমর্থন দেয়ায় জার্মানি, ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যকে রীতিমত সতর্ক করেছে পিয়ংইয়ং।
জাতিসংঘে নিযুক্ত উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, যুক্তরাষ্ট্র তাদের পশ্চিমা মিত্র এবং নিরাপত্তা পরিষদের কার্যক্রম তীক্ষ্ণভাবে পর্যবেক্ষণ করছে পিয়ংইয়ং।
জাতিসংঘে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত কিম সোং বলেন, জার্মানি, যুক্তরাজ্য এবং ফ্রান্সকে দিয়ে এ ন্যাক্কারজনক পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের ভয়াবহ আচরণ আমরা কখনোই সহ্য করবো না। নিরাপত্তা পরিষদ আমাদের সার্বভৌমত্ববিরোধী কোনো পদক্ষেপ নিলে আমরাও বসে থাকবো না।
এদিকে, স্থবির হয়ে পড়া পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ আলোচনায় গতি ফেরাতে শনিবার সুইডেনে বৈঠক করে উত্তর কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটন বৈঠককে অগ্রগতি হিসেবে অভিহিত করলেও পিয়ইয়ং জানায়, ব্যর্থ হয়েছে তাদের আলোচনা। এরপরই দু'পক্ষকে আরো আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানায় সুইডেন। স্টকহোমের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে দু'সপ্তাহের মধ্যে পুনরায় আলোচনায় বসার প্রতিশ্রুতি দেয় ওয়াশিংটন। তবে উত্তর কোরিয়া আলোচনায় ফিরবে কী না তা যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছে পিয়ইয়ং।
উত্তর কোরিয়ার প্রধান মধ্যস্থতাকারী কিম মিয়ং গিল বলেন, পানমুনজমে বৈঠকের ১শ' দিন পর তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। অথচ তারা নতুন কোনো প্রস্তাবই দেয়নি। খুবই বাজে এবং বিরক্তিকর আলোচনা হয়েছে। তারা বলছে দু'সপ্তাহের মধ্য নতুন কোরে আলোচনায় বসবে। দু'সপ্তাহে নতুন কি প্রস্তাব নিয়ে আসবে তারা? যাইহোক পরবর্তী আলোচনা হবে কী হবে না, এটা যুক্তরাষ্ট্রের আচরণের ওপর নির্ভর করছে।
উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্র দ্বন্দ্ব নিরসনে গেলো বছর প্রথমবার ট্রাম্প-কিম সিঙ্গাপুরে বৈঠক করেন। তাদের দ্বিতীয় বৈঠক হয় ভিয়েতনামে। পরবর্তীতে তৃতীয় দফায় পানমুনজমে সাক্ষাত করেন ট্রাম্প-কিম। দু'পক্ষের মতানৈক্যের কারণে সংকট সমাধানে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতিতে পৌছাতে পারেনি ওয়াশিংটন ও পিয়ংইয়ং।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop