মহানগর সময়‘প্রতিবন্ধী’ শব্দটি অবমাননাকর: সুলতানা কামাল

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
এখনো বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবন্ধীতার বিষয়ে নেতিবাচক খবর, ভাষা-পরিভাষা ‘প্রতিবন্ধী বা প্রতিবন্ধীদের’ শব্দ ব্যবহার করা হয়। এটা অবমাননাকর, এখনো তারা ‘প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের’ শব্দগুচ্ছ ব্যবহার করছে না বলে মন্তব্য করেছেন মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল।
বুধবার (৯ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় জাতীয়  প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন- ২০১৩ বাস্তবায়ন, বিদ্যমান পরিস্থিতি ও করণীয় শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
প্রতিবন্ধী নারীদের জাতীয় পরিষদ (এনসিডব্লিউ)এর আয়োজনে সংগঠনটির সভাপতি নাসিমা আক্তারের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
সুলতানা কামাল বলেন, হাজার কোটি টাকা লোপাট হয়ে যাচ্ছে আর প্রতিবন্ধী ব্যক্তির জন্য মাসে ৭শ টাকা। বিশেষ মানুষদের জন্য একদিকে বলছেন অধিকার সুরক্ষা অন্যদিকে হাস্যকর ভাতা। অথচ  এই বঞ্চিত বিশেষ মানুষেরা যাদেরকে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছিনা তারাই কিন্তু আজ অলিম্পিকে সোনা আনছে। বিশেষ ভূমিকা রাখছে দেশের বিভিন্ন কাজে। আজ তাদেরকে করুনার পাত্র হয়ে কেন থাকতে হবে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের একজনকে মাত্র ৭০০ টাকা মাসিক হারে ভাতা দেওয়া হয়। যা  কোনোভাবেই যথেষ্ট নয়। আর এলাকার জনপ্রতিনিধিরা ভাতা কার্ড দেওয়ার নামে সম্মানী হিসেবে প্রথম ছয় মাসের টাকা নিজেদের পকেটে ঢুকিয়ে আত্মসাৎ করে। এদেরকে এখন শুদ্ধি অভিযানে আনা দরকার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন জাতীয় তৃণ মূল প্রতিবন্ধী সংস্থার  সভাপতি আব্দুল হাই মন্ডল ব্লু ল ইন্টারন্যাশনাল এর ইন-কান্ট্রি কো-অর্ডিনেটর রেজাউল করিম সিদ্দিকী, ব্লাস্টের গবেষণা উপদেষ্টা  তাজুল ইসলাম ও নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক। আইনের সঠিক বাস্তবায়ন ও প্রয়োগ চেয়ে বক্তারা মন্তব্য করে বলেন সামগ্রিকভাবে দেশের উন্নয়নের কথা চিন্তা করতে হলে বলতে হয় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়ন ছাড়া দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইনের অধীনে ক্ষতিপূরণের আবেদন ও নিষ্পত্তির পর্যায় সমূহ নিয়েও আলোচনা করা হয়।
সভাপতির বক্তব্যে প্রতিবন্ধী নারীদের জাতীয় পরিষদের সভাপতি নাসিমা আক্তার জানান, ২০১৩ সালের এইদিনে আইনটির জন্ম হয়েছে। সে হিসেবে আজ এ আইনের জন্মদিন। বিগত ছয় বছরে এর কোনো অগ্রগতি হয়নি। বলতে গেলে আমরা অনেক পেছনে আছি।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৭ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের আর্থিক সহযোগিতায় ও ব্লু ল’ ইন্টারন্যাশনাল এল এল পি’র সার্বিক তত্ত্বাবধানে এনসিডব্লিউও, এনজিডিও ও ব্লাস্টের সহযোগিতায় ঢাকা, টাঙ্গাইল, পাবনাসহ সাতটি জেলায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সংস্থা ডিপিওসমূহের ক্ষমতায়নে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন বাস্তবায়ন করছে। এর আগে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিসিএসসহ ১ম ও ২য়  শ্রেণির সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে শতকরা ১ শতাংশ কোটা সুবিধা থাকলেও এখন তা বাতিল হয়ে গেছে।
এ সময় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রতিবন্ধী নারীদের জাতীয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাজেদা আক্তার।
 

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop