মহানগর সময়অনৈতিক বিপণন ব্যবস্থায় ব্যবসা গুটাচ্ছে বিদেশি ওষুধ কোম্পানি

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
রাজধানীসহ সারাদেশেই দেদারসে চলছে ওষুধ কোম্পানির অনৈতিক বিপণন ব্যবস্থা। নিজ কোম্পানির ওষুধ প্রেসক্রাইব করাতে অনেক সময় নিজ পকেট থেকেও টাকা দিতে হয় ওষুধ কোম্পানির এজেন্টদের। এসব অনৈতিক বিপণন ব্যবস্থার কারণে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের বিদেশি ওষুধ কোম্পানি। ডাক্তারদের নৈতিক অবক্ষয়ের কারণেই এমন দশা বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। এ জন্য সরকারি পদক্ষেপের মাধ্যমে অনৈতিক কাজে জড়িত ডাক্তার ও ওষুধ কোম্পানিকে আইনের আওতায় আনার পরামর্শ তাদের।
হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে আসা এক রোগী বলেন, অসুস্থ রোগী বসে আছে, রোগী দেখতে পারছে না ডাক্তার। ওনাদের ভেতরে কি?  
ডাক্তারের সঙ্গে ওষুধ কোম্পানির কী সেই আলাপচারিতা, কারোরই তা অজানা নয়। কোম্পানির এজেন্টদের কাছে জানতে চাইলে তারা জানান নতুন ওষুধ সম্পর্কে ডাক্তারদের অবহিত করাই মূল লক্ষ্য।
ওষুধ কোম্পানির এক এজেন্ট বলেন, নতুন কোনো ওষুধ আসলে তার তথ্য নিয়ে ডাক্তারদের কাছে আমাদের যেতে হয়। তারা যদি মনে করে এ ওষুধটা লাগবে তাহলে তারা সেটা প্রেসক্রাইব করেন।   
তবে গল্পের ছলে গোপনে জানা যায়, নিজ কোম্পানির ওষুধ প্রেসক্রাইব করাতে অনেক ভাবেই ডাক্তারদের ম্যানেজ করতে হয় তাদের।
সম্প্রতি দেখা যায়, ওষুধ বিপণনে এমন অনৈতিক ব্যবস্থার কারণে এ দেশে থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিতে শুরু করেছে বিদেশি অনেক মানসম্পন্ন ওষুধ কোম্পানি। শিগগিরই ওষুধ কোম্পানির এমন অসুস্থ প্রতিযোগিতা ঠেনানো না গেলে মানহীন ওষুধে বাজার সয়লাব হতে পারে বলে আশঙ্কা ওষুধ বিশেষজ্ঞদের।
ওষুধ শিল্প মালিক সমিতির হিসাব মতে, বর্তমানে সারাদেশে নিবন্ধিত ওষুধ কোম্পানির সংখ্যা প্রায় ১৫০টি। যার মধ্যে বাজারের প্রায় ৮০ ভাগ ওষুধের যোগান দিচ্ছে ২০ থেকে ২৫টি ওষুধ কোম্পানি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop