বাংলার সময়বান্দরবানে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে জমি ক্রয়-দখল, রিসোর্ট তৈরি

সময় সংবাদ

fb tw
পার্বত্য শান্তিচুক্তি অনুসারে বান্দরবানসহ তিন পার্বত্য জেলার স্থায়ী বাসিন্দা ছাড়া কেউ জমি কিনতে পারবেন না। এমন বিধান থাকলেও বান্দরবান সদর উপজেলার মিলনছড়িতে বহিরাগতরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে ভূমি ক্রয় ও দখল করে বিলাসবহুল হোটেল-মোটেল তৈরি করছেন।
স্থানীয়দের অভিযোগ, দখল করা হয়েছে স্থানীয়দের জমি, ঝিরি-ঝর্ণা ও চলাচলের পথ। তবে রিসোর্টটির চেয়ারম্যানের দাবি, জায়গা দখলের অভিযোগ ভিত্তিহীন।
বান্দরবানের রুমা-থানচি সড়কের ৫ কিলোমিটারে মিলনছড়ি এলাকায় গড়ে উঠেছে বিলাসবহুল সিলভান ওয়াই রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা রিসোর্ট। ২০১৫ সাল থেকে বহিরাগতরা জমি কিনে রিসোর্টটি তৈরি করছেন। রিসোর্টটির সাথে আছেন চট্টগ্রাম ১৪ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরীর ছোট ভাই জসিম উদ্দিন মন্টু, ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির অন্যতম হোতা বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা জিকে শামীমসহ ৮ জন। এজন্য কেনা হয়েছে ৫০ একর ভূমি, দখল করা হয়েছে আদিবাসীদের আরও ৫০ একর জমি। স্থানীয় সাইঙ্গা ত্রিপুরা পাড়ার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের অভিযোগ, দখল করা হয়েছে জায়গা-জমি, ঝিরি-ঝর্ণা ও স্থানীয়দের চলাচলের পথ।
সাইঙ্গা ত্রিপুরা পাড়ার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের বাসিন্দাদের একজন বলেন, ব্যক্তিগত রাবার বাগান তাদের জায়গা পড়ছে বলে তাতে আগুন ধরিয়ে দিছে।
রিসোর্টের কাজ শুরুর জন্য প্রথম পর্যায়ে জিকে শামীম প্রাথমিকভাবে ২ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছেন। আর ঢাকায় প্রভাবশালী জিকে শামীমের গ্রেফতারের খবর জানাজানি হলে সাইঙ্গা ত্রিপুরা পাড়ার আদিবাসীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে আতঙ্ক।
সাইঙ্গা ত্রিপুরা পাড়ার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের আরও এক বাসিন্দা বলেন, আমরা ঠিকমত স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারি না।
তবে সিলভান ওয়াই রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা চেয়ারম্যানের জসিম উদ্দিন মন্টুর দাবি, জায়গা দখলের অভিযোগ ভিত্তিহীন। সরকারি নিয়ম মেনে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সম্প্রদায়সহ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে রিসোর্ট করার জন্য বান্দরবানে জমি কিনেছেন।
রিসোর্টটি পাহারায় পুলিশ ফাঁড়ির জন্য জমি দান করে সেখানে পাকা ভবনও করে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করা হলেও বিষয়টি অস্বীকার করেন বান্দরবান পার্বত্য জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার।
তিনি বলেন, ‘পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের সুবিধা দেয়া হয়নি। ভবিষৎও হবে না।’
বান্দরবানের স্থায়ী বাসিন্দা না হয়েও কীভাবে জায়গা কেনা হয়েছে তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।
পাঁচতারকা মানের রিসোর্টটিতে বিনিয়োগ করার কথা প্রায় ২০০ কোটি টাকা। ২০২২ সালের জানুয়ারিতে চালুর কথা রয়েছে রিসোর্টটি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop