আন্তর্জাতিক সময়তুরস্কের অর্থনীতি গুঁড়িয়ে দেয়ার হুমকি ট্রাম্পের

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
ইরাকের সাদ্দাম হোসেনর কাছে ব্যাপক বিধ্বংসী মারণাস্ত্র আছে, এই ধুয়া তুলে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধে জড়ানো যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ভুল সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর সে-কারণেই সিরিয়া থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি। তবে, সিরিয়ায় সামরিক অভিযানের নামে 'সীমা ছাড়িয়ে' গেলে তুরস্কের অর্থনীতি গুঁড়িয়ে দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ার করেন ট্রাম্প।
এদিকে, সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে তুর্কী সামরিক অভিযানের প্রথম দিনে অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে। এ অভিযানে উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘসহ বিশ্ব সম্প্রদায়।
বৃহস্পতিবার সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে দফায় দফায় বিমান হামলা চালায় তুর্কি বাহিনী। পর্যবেক্ষণ সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস জানায়, কুর্দি বাহিনীকে লক্ষ্য করে তুরস্কের এ হামলায় বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ হতাহত হয়েছে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান বলেছেন, সিরিয়ার কুর্দি যোদ্ধা এবং জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস দমন করতেই সামরিক অভিযান শুরু করা হয়েছে। আর এর উদ্দেশ্য হচ্ছে, তুরস্কে আশ্রয় নেয়া সিরীয় শরণার্থীদের দেশে ফেরানোর জন্য একটি নিরাপদ অঞ্চল গঠন করা।
সিরিয়ান ভাই বোনদের জন্যই এ অভিযান শুরু করা হয়েছে। সাধারণ মানুষ, ঐতিহাসিক, সাংস্কৃতিক বা ধর্মীয় স্থাপনা লক্ষ্য করে যাতে কোনো হামলা চালানো না হয় সেই নির্দেশনাও সেনাদের দেয়া আছে। তুরস্কের এ-হামলা প্রতিহত করতে কুর্দী ছাড়াও সংখ্যালঘু এবং ধর্মীয় গোষ্ঠীগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে কুর্দি-নেতৃত্বাধীন এসডিএফ। তুর্কী সেনারা বেসামরিক এলাকাগুলোতে হামলা চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ করে তারা।
এসডিএফ কমান্ডার সুজি কামিশলু বলেন, 'তাদের যেকোন হামলা মোকাবেলা করতে আমরা প্রস্তুত আছি। যদি জীবন দিতে হয় তবুও আমরা পিছু হটবো না। জাতিসংঘ এবং ইউরোপিয় ইউনিয়নের প্রতি আমাদের আহ্বান থাকবে দ্রুত ব্যবস্থ্ নিন।' 
এরমধ্যেই, তুরস্ক কুর্দিদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করলেও এতে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো সমর্থন নেই বলে আবারও জানিয়েছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। তবে, কুর্দীরা তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলে যেকোন সময় হামলা চালাতে পারে, তুর্কি প্রশাসন এমন আশঙ্কার কথা যুক্তরাষ্ট্রকে জানিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। আর সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হয়েছে জানিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের যুদ্ধে জড়ানো ঠিক হয় নি যুক্তরাষ্ট্রের।
ট্রাম্প বলেন, 'মিথ্যা বিশ্বাসে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধ শুরু করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। ইরাকের কাছে গণ-বিধ্বংসী অস্ত্র আছে বলে জানানো হলেও যুদ্ধের পর এমন কোনো অস্ত্র সেখানে পাওয়া যায় নি। উল্টো আমাদের হাজার হাজার কোটি ডলার খরচ হয়েছে। হাজারো সেনা হতাহত হয়েছেন। লাখ লাখ সাধারণ মানুষ মারা গেছে। তাই ঐ অঞ্চল থেকে সেনা সরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছি, কারণ বোকামির এ যুদ্ধ আমরা শেষ করতে চাই।' 
সিরিয়ায় তুর্কী বাহিনীর অভিযান নিয়ে ট্রাম্প বলেন, প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান জানিয়েছেন তারা সন্ত্রাসীদের উৎখাত করতে সেখানে অভিযান শুরু করেছেন। তবে অযৌক্তিক কিছু করা হলে তার পরিণাম ভালো হবে না বলেও জানান ট্রাম্প। এদিকে, সিরিয়ায় তুর্কি অভিযানের নিন্দা জানিয়ে বিক্ষোভ করেছে বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে থাকা কুর্দিরা। আর জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস উদ্বেগ জানিয়ে বলেছেন, এ অভিযানের ফলে সেখানে সাধারণ মানুষের প্রাণহানী ঘটবে। সামরিক অভিযান এ সমস্যা সমাধানে কোনো ভূমিকা রাখবে না বলেও জানান তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop