ksrm

মহানগর সময়আবরার হত্যা : জবানবন্দি শেষে কারাগারে অনিক

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সম্পৃক্ততার বিষয়ে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আসামি একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার।
শনিবার (১২ অক্টোবর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলাম এ জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এ নিয়ে এ হত্যা মামলার তিন আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ করা হয়।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দার (ডিবি) পরিদর্শক ওয়াহিদুজ্জামান অনিকের জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন জানান। আবেদনে বলা হয়, ঘটনায় সম্পৃক্ততার বিষয়ে অনিক স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দিতে রাজি হয়েছেন।
আদালতের খাস কামড়ায় জবানবন্দি রেকর্ড শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। তবে জবানবন্দিতে অনিক কী বলেছেন, সে বিষয়ে আদালত ও তদন্ত সংশ্লিষ্ট কেউ কিছু বলতে রাজি হননি।
এদিকে, আজও মাজেদুল ইসলাম নামে এ মামলার আরেক আসামির পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আরেকটি আদালত।
পুলিশের খাতায় মাজেদুল ইসলাম নাম থাকলেও আদালতে তিনি বলেন, আমার নাম মাজেদুর রহমান নওরোজ।
এর আগে বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) সকালে কমিটির উপ সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ ও শুক্রবার (১১ অক্টোবর) উপ ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিওন হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ততার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দেন। গত ৮ অক্টোবর সকালে জিওন, অনিকসহ এই মামলায় বুয়েট ছাত্রলীগের ১০ নেতাকর্মীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন একই আদালত। সেই রিমান্ড শেষ হওয়ার আগেই অনিক সরকারসহ তিনজন ঘটনায় সম্পৃক্ততার বিষয়ে স্বীকারোক্তি দিলেন। এ হত্যাকাণ্ডের পর থেকে দফায় দফায় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করে আসছেন।
শনিবার বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জামী-উস সানির কক্ষসহ দুটি হলের তিনটি কক্ষ সিলগালা করেছে প্রশাসন। হলে শুদ্ধি অভিযান চলমান রয়েছে।
এর আগে সকালে সহপাঠী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর আন্দোলনে ফুঁসে ওঠা শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বুয়েট। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. সাইদুর রহমান সাক্ষারিত দাবি মানার পৃথক পৃথক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।
গতকাল বিকেলে বৈঠকে উপাচার্য সাইফুল ইসলাম অধিকাংশ দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিলেও আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন শিক্ষার্থীরা।
ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে রোববার (৬ অক্টোবর) রাতে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। এরপর রাত ৩টার দিকে শের-ই-বাংলা হলের নিচতলা ও দোতলার সিঁড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
আবরার হত্যাকাণ্ডের পরিপ্রেক্ষিতে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা প্রথমে ১০ দফা দাবি আদায়ে আন্দোলনে নামেন। গতকাল শুক্রবার বুয়েট অডিটোরিয়ামে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন বুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম। তিনি সে সময় ঘোষণা দেন, বুয়েটে সাংগঠনিক ছাত্র ও শিক্ষক রাজনীতি থাকবে না। একই সঙ্গে অভিযুক্ত ১৯ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কারের ঘোষণা দেন তিনি।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop