ksrm

আন্তর্জাতিক সময়সৈকতে মোদির নোংরা কুড়োনো লোকদেখানো?

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
সুস্থ থাকুন, পরিষ্কার রাখুন- এই বার্তা দিতে শনিবার (১২ অক্টোবর) মমল্লপুরম সৈকতে ‘প্লগিং’ করেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই ভিডিও ভাইরালও হয়ে যায় সামাজিক মাধ্যমে। সেখানে প্রশংসার পাশাপাশি কিছু সমালোচনারও জন্ম দিয়েছে সেটি।
সমালোচনার কারণ, ভিডিওতে দেখা যায় প্লাস্টিক-মুক্ত দেশের ডাক দিয়েছেন যিনি, সেই মোদিই আবর্জনা কুড়িয়ে তা প্লাস্টিকের থলিতে ভরেছেন। নেটিজেনরা বলছেন, ‘ভালই শুটিং করেছেন মোদী।’
‘প্লগিং’ হল ‘জগিং’ ও ‘পিকিং আপ লিটারস’, অর্থাৎ জগিং করার সময়ে পথে পড়ে থাকা নোংরা-আবর্জনা সাফ।
মমল্লপুরমে তাজ-এর রিসর্টে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ভিডিওতে দেখা যায়, প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়েছেন মোদী। পরনে কালো টি-শার্ট ও ট্রাউজার্স, খালি পা আর হাতে ধরা আকুপ্রেসার হ্যান্ড রোলার। হোটেলের নিকটবর্তী সৈকতে পড়ে থাকা প্লাস্টিকের বোতল, প্যাকেট, আরও এটা-ওটা নিজে হাতে কুড়োতে থাকেন প্রধানমন্ত্রী। হাতে কোনও গ্লাভস নেই। কুড়িয়ে নেওয়া সেই সব আবর্জনা প্লাস্টিকের থলিতে ভরে তিনি তুলে দেন হোটেলের এক কর্মীর হাতে।
পরে ৩ মিনিটের সেই স্বচ্ছতা অভিযানের ভিডিওটি টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। উপরে লেখা, ‘চারপাশ পরিষ্কার রাখুন। নিজেরা সুস্থ থাকুন।’
সেই সঙ্গে তিনি আরও লিখেছেন, ‘সকালে মমল্লপুরমের সৈকতে প্লগিং করলাম। ৩০ মিনিট করেছি। যা কুড়িয়েছি জয়রাজের হাতে দিয়েছি, উনি হোটেলের কর্মী।’
ভিডিওটি ভাইরাল হয় নিমেষে। এরিমধ্যে আঠারো লাখেরও বেশিবার দেখা হয়েছে ভিডিওটি। প্রায় ৪০ হাজার বার রি-টুইট হয়েছে, লাইক পড়েছে দেড় লাখের মতো।
অবশ্য বিতর্কও শুরু হয় সঙ্গে সঙ্গেই। সমালোচকদের বক্তব্য, মোদি যদি স্বচ্ছ ভারতের বার্তা দিতে এই কাজ করে থাকেন, তা হলে জঞ্জাল কুড়িয়ে নিজে একটা প্লাস্টিকের থলিতে ভরছিলেন কেন?
তবে অনেকের দাবি, থলিটি নিষিদ্ধ প্লাস্টিকের তৈরি নয়। তার পরেও অবশ্য বিতর্ক থামেনি। সমালোচকরা বলেছেন, প্লাস্টিক-মুক্ত ভারতের বার্তা দিতে চাইলে মোদী প্লাস্টিকের বদলে অন্য কোনও কিছুর তৈরি ব্যাগ ব্যবহার করতে পারতেন।
এ প্রশ্নও করেছেন মানুষ, প্রধানমন্ত্রী যাচ্ছেন, তা সত্ত্বেও কীভাবে নোংরা পড়ে থাকল সৈকতে? লোকদেখানো নয় তো?
দক্ষিণী অভিনেতা ও গত লোকসভা ভোটে বেঙ্গালুরু সেন্ট্রাল কেন্দ্র থেকে নির্দল প্রার্থী হিসেবে লড়া প্রকাশ রাজ টুইট করেছেন, ‘মোদির নিরাপত্তা কোথায়? শুধু ক্যামেরাম্যান দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হল?’ এ প্রশ্নও তুলেছেন তিনি, সংশ্লিষ্ট দফতরের কী সাহস যে বিদেশি প্রতিনিধিদল আসছে জেনেও সৈকতকে এ ভাবে নোংরা রেখে দিল!
অনেকের মতে, মোদির এই কট্টর সমালোচক বলতে চেয়েছেন, সবটাই প্রধানমন্ত্রীর লোকদেখানো। মোদি তাঁর নিরাপত্তা নিয়েই সৈকতে গিয়েছিলেন। কিন্তু ক্যামেরার ফ্রেমে কাউকে আসতে দেননি।
বরাবরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রচারের অন্যতম বিষয় ‘স্বচ্ছ ভারত অভিযান’। গত মাসে মন কি বাত-এ মোদি প্রথম ‘প্লগিং’-এর বিষয়টি তুলেছিলেন।
তবে মোদির এমন কর্মকাণ্ড নতুন নয়। নেটিজেনরাই মনে করিয়ে দিয়েছেন, ফেব্রুয়ারিতে প্রয়াগরাজে সাফাইকর্মীদের পা ধুয়ে দিয়েছিলেন মোদি। আর গত মাসে মথুরায় কাগজকুড়ানিদের সঙ্গে বসে জঞ্জালের স্তূপ থেকে প্লাস্টিক বাছতে দেখা যায় তাঁকে।
সূত্র: আনন্দবাজার

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop