ksrm

আন্তর্জাতিক সময়সিরীয়-তুর্কি সীমান্তে নাটকীয় মোড়

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
তুরস্ক সীমান্তে সিরীয় সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্তের মাধ্যমে নাটকীয় মোড় নিল সিরীয়-তুর্কি সীমান্ত পরিস্থিতি। এর আগে রোববার কুর্দি বাহিনীর সঙ্গে চুক্তির পর তুরস্ক সীমান্তে সেনা মোতায়েনে সম্মত হয় সিরীয় সরকার।
ইতোমধ্যে সেনারা উত্তরাঞ্চলের বেশ কয়েকটি শহরে প্রবেশ করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তবে কোনো অবস্থাতেই কুর্দিদের বিরুদ্ধে অভিযান বন্ধ হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান।
তুরস্কের চলমান সামরিক অভিযান সেখানে নতুন করে মানবিক সঙ্কট সৃষ্টি করবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে ফ্রান্স। আর মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, উত্তরাঞ্চল থেকে প্রত্যাহার করা হলেও এখনই সিরিয়া ছাড়বে না মার্কিন সেনারা।
রোববার দিনের শেষ দিকে উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ মানবিজ এবং আলেপ্পোতে প্রবেশ করে সিরীয় সেনাবাহিনীর কয়েকশ' সদস্য। তাদেরকে খুব দ্রুতই তুর্কি সীমান্তে মোতায়েন করা হবে বলে জানিয়েছে সিরীয় কর্তৃপক্ষ।
এর আগে দিনের শুরুতে সিরীয় সরকারের সঙ্গে একটি চুক্তি করে কুর্দি বাহিনী। দীর্ঘদিন যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র হিসেবে কাজ করেছে কুর্দিরা। চুক্তি অনুযায়ী তুরস্কের আগ্রাসন রুখতে তুর্কি সীমান্তে সেনা মোতায়েন করবে সিরীয় সরকার। তবে কিসের ভিত্তিতে দু'পক্ষের মধ্যে এই চুক্তি সই হয়েছে, সে বিষয়ে কোন তথ্য জানা যায়নি। এরমধ্যেই কুর্দি বাহিনী জানিয়েছে, তুর্কি অভিযানের ফলে কারাগার থেকে পালিয়েছে তাদের কাছে বন্দি থাকা অন্তত ৮০০ আইএস যোদ্ধা।
তবে সিরীয় বাহিনী বা অন্য দেশের নেওয়া কোন পদক্ষেপই কুর্দিদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান বন্ধ করতে পারবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান। এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি দাবি করেন, সিরিয়ায় চলমান অভিযান নির্দিষ্ট কোন গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নয়, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে।
রিসেপ তাইপ এরদোয়ান বলেন, সিরিয়ায় সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান শুরুর পর থেকেই আমাদের অর্থনৈতিক অবরোধের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। বেশ কয়েকটি দেশ আমাদের কাছে অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করেছে। যদি কেউ ভাবে, এসব পদক্ষেপের মাধ্যমে আমরা সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান থেকে পিছিয়ে আসবো, তাহলে তা হবে ভুল।
তবে তুরস্কের চলমান সামরিক অভিযান সেখানে নতুন করে মানবিক সঙ্কট সৃষ্টি করবে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছে ফ্রান্স। অভিযান বন্ধে আঙ্কারার প্রতিও আহ্বান জানান তিনি।
ইমনুয়েল ম্যাক্রোঁ বলেন, সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে বর্তমানে যে অবস্থা, তাতে সেখানে সন্ত্রাসীরা আবারো শক্তি সঞ্চার করবে। অবনতি হবে মানবিক পরিস্থিতির। এই পরিস্থিতিতে আমরা তুরস্কের কাছে অস্ত্র বিক্রি বন্ধের মতো সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
এ অবস্থায় মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, বিভিন্ন দিক বিবেচনা করেই সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই অঞ্চলে বেশ কয়েকটি পক্ষ তৈরি হয়ে যাওয়ায়, সেখানে মার্কিন সেনাদের নিরাপত্তা হুমকির মুখে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তবে সিরিয়ায় আইএস এখনো পরাজিত হয়নি উল্লেখ করে জঙ্গিদের ওপর চাপ প্রয়োগ অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জিম ম্যাটিস। আর এক টুইটে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চল থেকে সেনা প্রত্যাহারকে ভালো সিদ্ধন্ত হিসেবে উল্লেখ করেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।
কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের সামরিক অভিযান শুরু হওয়ার পর মাত্র কয়েক দিনেই বাস্তুচ্যুত হয়েছে বহু সাধারণ মানুষ। এরমধ্যেই তুর্কি সীমান্তে সরকারি বাহিনী মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিরিয়া। এতে করে তুর্কি বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষের শঙ্কা তৈরী হয়েছে। ওই অঞ্চলে দুই দেশের সামরিক বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধ বাঁধলে, তা ভয়াবহ আকার ধারণ করবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop