ksrm

আন্তর্জাতিক সময়হংকং ইস্যুতে মার্কিন বিল পাস, ‘নগ্ন দ্বিচারিতা’ আখ্যা চীনের

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
গণতন্ত্রপন্থীদের বিরোধিতায় পার্লামেন্টে বার্ষিক পরিকল্পনা প্রকাশে ব্যর্থ হয়েছেন হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম। বুধবার দু'দফা চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে পরে পূর্বে ধারণ করা ভিডিও ভাষণে বিশৃঙ্খলা সহ্য করা হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।
এরমধ্যেই, চীনের হুমকি উপেক্ষা করে গণতন্ত্রপন্থীদের সমর্থনে তিনটি বিল পাস করেছে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ। পরিষদের এমন আচরণকে নগ্ন দ্বিচারিতা আখ্যা দিয়ে এর নিন্দা জানিয়েছে বেইজিং।
বুধবার বার্ষিক পরিকল্পনা প্রকাশের জন্য পার্লামেন্টে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গেই প্রশ্নবানে জর্জরিত হতে থাকেন হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম। উপর্যপুরি প্রশ্নবান, এক সময় হট্টগোলে রূপ নেয়। বাধ্য হয়ে বক্তব্যে বিরতি দিয়ে পার্লামেন্ট ছাড়েন ক্যারি। আনুমানিক ২০মিনিট পর আবারও পার্লামেন্টে ফেরেন তিনি। তোপের মুখে দ্বিতীয় দফায়ও পার্লামেন্ট ছাড়েন তিনি। পরে পূর্বে ধারণ করা ভিডিওতে বার্ষিক পরিকল্পনা তুলে ধরেন প্রধান নির্বাহী।
হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি লাম বলেন, বিরোধীরা হংকংকে মারাত্মক সংকটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। চার মাসে তাদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত ৪শ' বিক্ষোভে ১ হাজার ১শ' মানুষ আহত হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আটক করা হয়েছে ২ হাজার ২শ' জনকে। হংকংয়ের নিরাপত্তা এবং জনগণের অধিকার সংরক্ষণে এক দেশ দুই নীতিই আমাদের রক্ষাকবচ। কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা সহ্য করবে না প্রশাসন।
প্রত্যর্পণ বিল স্থায়ীভাবে বাতিল, আন্দোলনে পুলিশি নির্যাতনের তদন্ত এবং ভোট প্রদানের ক্ষমতাসহ পাঁচদফা দাবি নিয়ে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য না আসায় ক্যারির ভাষণকে অর্থহীন বলছেন গণতন্ত্রপন্থীরা।
আন্দোলনকারীরা বলছেন, ভাষণে মূল সংকট এড়িয়ে গেছেন ক্যারি লাম। তার এ ভাষণের কোনো অর্থ হয়নি। বলেছিলেন আমাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন। সংকট সমাধানে এখনো কোনো পদক্ষেপ তিনি নেননি। সংকটের রাজনৈতিক সমাধান চাই আমরা।
আগেরদিন মঙ্গলবার আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে চীনের হস্তক্ষেপের নিন্দা জানিয়ে গণতন্ত্রপন্থীদের সমর্থনে তিনটি প্রস্তাব পাস করে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ। এর মধ্যে অন্যতম হলো- মার্কিন অস্ত্র যাতে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবহার না হয় সে বিষয়টি নিশ্চিত করা।
মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেন, গেলো চার মাস ধরে হংকংয়ের তরুণরা স্বাধীনতা, ন্যায়বিচার এবং গণতন্ত্রের দাবিতে আন্দোলন করছে। অন্যায়ভাবে তাদের সেই স্বপ্ন মিশিয়ে দেয়া যাবে না। হংকংয়ের জনগণের দাবির সঙ্গে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ, সিনেট সর্বসম্মতভাবে একমত। চীনের সঙ্গে বাণিজ্য রক্ষার স্বার্থে যুক্তরাষ্ট্র যদি মানবাধিকার নিয়ে কথা না বলে তাহলে আমরা আমাদের নৈতিকতা হারাবো।
হংকংয়ের পার্লামেন্ট বিতর্কিক প্রত্যর্পণ বিল উত্থাপনের পরই অঞ্চলটিতে বিক্ষোভ শুরু হয়। যা চীনকে রীতিমতো চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে। শুরু থেকেই প্রকাশ্যে গণতন্ত্রপন্থীদের সমর্থন দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। রোববার চীনকে বিভক্তকারীদের হাড় চুর্ণবিচূর্ণ করার হুঁশিয়ারি দেন চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। তার হুমকি উপেক্ষা করে দু'দিন পরই গণতন্ত্রপন্থীদের পক্ষে প্রস্তাব পাস করলো মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ। পরিষদের আচরণের তীব্র সমালোচনা কোরে যেকোনো মূল্যে নিজেদের অখণ্ডতা রক্ষার পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop