ksrm

বাংলার সময়কক্সবাজারে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে ২ ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত

সময় সংবাদ

fb tw
কক্সবাজারের টেকনাফে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুই ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। যারা মাদক চোরাকারবারি বলে বিজিবি ও পুলিশের ভাষ্য।
এর মধ্যে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার এক মাদকের আসামি রোববার (২০ অক্টোবর) ভোর রাতে সদর ইউনিয়নের মহেশখালিয়া পাড়ায় অভিযানের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। কাছাকাছি সময়ে নাফ নদীর হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মদীনা জোড়া এলাকায় র‌্যাবের মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত হন আরেকজন। 
মহেশখালিয়া পাড়ায় নিহত মোহাম্মদ আজিজ (২৪) টেকনাফের সদর ইউনিয়নের ডেইল পাড়ার ছালেহ আহম্মদের ছেলে। মাদক ও অস্ত্র আইনের একাধিক মামলায় তিনি দীর্ঘদিন ধরে পলাতক ছিলেন বলে টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান।
তিনি জানান, শনিবার রাতে ডেইল পাড়া থেকে আজিজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের একটি দল। থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি ইয়াবা ও অস্ত্রের মজুদের তথ্য দেন। পরে সেই অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে তাকে নিয়ে মহেশখালিয়া পাড়া নৌঘাটে অভিযানে যায় পুলিশ।
পুলিশ সেখানে পৌঁছালে আজিজের সহযোগী মাদক কারবারিরা গুলি ছুঁড়তে থাকে। পুলিশও তখন আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলি থামার পর সেখানে আজিজকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।
গুলিবিদ্ধ আজিজকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান ওসি।
তিনি বলেন, পুলিশের তিন সদস্যও এ অভিযানে আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে একটি দেশি বন্দুক, সাতটি গুলি ও তিন হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।
নাফ নদীর তীরে বিজিবির অভিযানে নিহত মো. রহিম উদ্দিন ওরফে রফিক (৩৭) টেকনাফের হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মধ্যকাঞ্জরপাড়ার মৃত আব্দুল জলিলের ছেলে। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলা ছিল কি না সে তথ্য জানাতে পারেননি বিজিবি কর্মকর্তারা।
বিজিবির টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. ফয়সল হাসান খান বলেন, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান আসার খবরে বিজিবির একটি দল ভোরে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মদীনা জোড়া এলাকায় নাফ নদীর তীরে অবস্থান নেয়।
সেখানে এক ব্যক্তিকে নদীর তীরে সন্দেহজনকভাবে ঘুরাঘুরি করতে দেখা যায়। এক পর্যায়ে মিয়ানমারের দিক থেকে ২/৩ জন লোকসহ একটি নৌকা নদীর কিনারে এলে ওই ব্যক্তি এগিয়ে যায়। বিজিবি সদস্যরা তাদের থামার নির্দেশ দিলে তারা গুলি ছুঁড়তে শুরু করে।
বিজিবি সদস্যরাও তখন আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলি থামলে ঘটনাস্থলে রফিককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক রফিককে মৃত ঘোষণা করেন বলে লেফটেন্যান্ট কর্নেল ফয়সল জানান।
তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে ৬০ হাজার ইয়াবা, একটি দেশি বন্দুক, তিনটি গুলি ও দুটি কিরিচ উদ্ধার করা হয়। বিজিবির দুই সদস্যও এ অভিযানে আহত হন।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop