ksrm

আন্তর্জাতিক সময়সারাজীবন কুর্দিদের রক্ষার প্রতিশ্রুতি কখনও দেইনি: ট্রাম্প

সময় সংবাদ

fb tw
somoy
প্রয়োজন হলে তুরস্কের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নেয়ার জন্যে প্রস্তুত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, যদিও যুক্তরাষ্ট্র কূটনৈতিক উপায়েই কুর্দি সমস্যাটির সমাধান করতে চায়। তবে সিরিয়ার পূর্বাঞ্চল থেকে কুর্দি বিদ্রোহীরা সরে না গেলে শিগগিরই আবারো সামরিক অভিযানের হুঁশিয়ারি দিয়েছে আঙ্কারা। আর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, প্রয়োজন না থাকলেও ইসরাইল এবং জর্ডানের অনুরোধে কিছু সংখ্যক মার্কিন সেনা সিরিয়ায় মোতায়েন থাকবে।
সোমবার রাতে সিরিয়ার ইরাক সীমান্তের তেল তামার শহর ছাড়ার সময় মার্কিন সেনাদের গাড়িবহরের সামনে দাঁড়িয়ে পড়েন কয়েকজন সাধারণ কুর্দি। এসময় বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে মার্কিন সেনাদের কুর্দিদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তারা।
এর আগে, সিরিয়ার কামিশলি শহরে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর গাড়িবহর লক্ষ্য করে সবজি ছুড়ে মেরে প্রতিবাদ জানান কুর্দিরা। তাদের ভীতু-কাপুরুষ আখ্যা দিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দেন বিক্ষোভকারীরা।
এর মধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি সিরিয়া থেকে সব সেনা প্রত্যাহার করতে চাইলেও ইসরাইল এবং জর্ডানের অনুরোধে স্বল্প সংখ্যক সেনাসদস্য দেশটিতে মোতায়েন রাখা হবে। এসময় সিরিয়ায় নিরাপদ অঞ্চল গড়ে তুলতে এরদোয়ান সরকারের উদ্যোগের প্রশংসা করেন ট্রাম্প।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, 'তুরস্ক যে নিরাপদ এলাকা তৈরির কাজ শুরু করেছে তা খুবই ভালো একটা উদ্যোগ। আমরা কুর্দিদের সঙ্গে কাজ করছি। তাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অনেক ভালো সম্পর্ক রয়েছে। গেল কয়েক বছর ধরে সিরিয়ায় আমরা তাদের সাথে কাজ করছি। তাদের পেছনে আমাদের কোটি কোটি ডলার খরচ হয়েছে। কিন্তু সারা জীবন তাদের রক্ষা করে যাব এমন কোন প্রতিশ্রুতি আমরা কখনও দেইনি।'
আর ট্রাম্পের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, প্রয়োজনে তুরস্কে সামরিক অভিযানের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র। সিএনবিসি টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, কুর্দিদের নিয়ে যে সংকট তৈরি হয়েছে তার সমাধান যুক্তরাষ্ট্র আলোচনার মাধ্যমেই করতে চায়। তবে তুরস্ককে কূটনৈতিক এবং অর্থনৈতিকভাবে চাপে রাখাও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের একটি কৌশল।
এদিকে, পিকেকের বিরুদ্ধে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে আঙ্কারা বলছে, কুর্দি বিদ্রোহীরা অবিলম্বে সিরীয় সীমান্ত ছেড়ে না গেলে আবারো সামরিক অভিযান শুরু করা হবে। তাদের বিরুদ্ধে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কারাবন্দী আইএস সদস্যদের ছেড়ে দেয়ারও অভিযোগ করে তারা।
তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসৌলু বলেন, 'সন্ত্রাসীরা এখনো হামলা অব্যাহত রেখেছে। এপর্যন্ত তারা অন্তত ৩০ বার আমাদের সেনাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলায় আমাদের এক সেনাসদস্য নিহত হয়েছে। আগামী ৩৫ থেকে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে সন্ত্রাসীরা পুরো অঞ্চল ছেড়ে না গেলে আবারো অভিযান শুরু করা হবে।'
তবে রাশিয়া মনে করে সিরিয়ার পুনর্গঠন এবং সেখানে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে কুর্দিদের স্বার্থকেও প্রাধান্য দিতে হবে। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ানের রাশিয়া সফরের একদিন আগে মস্কোয় এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, সিরিয়ার আসাদ সরকার এবং কুর্দিদের স্বার্থ রক্ষায় আঙ্কারার সঙ্গে আলোচনা করবে মস্কো।

আরও সংবাদ

বাংলার সময়
বাণিজ্য সময়
বিনোদনের সময়
খেলার সময়
আন্তর্জাতিক সময়
মহানগর সময়
অন্যান্য সময়
তথ্য প্রযুক্তির সময়
রাশিফল
লাইফস্টাইল
ভ্রমণ
প্রবাসে সময়
সাক্ষাৎকার
মুক্তকথা
বাণিজ্য মেলা
রসুই ঘর
বিশ্বকাপ গ্যালারি
বইমেলা
উত্তাল মার্চ
সিটি নির্বাচন
শেয়ার বাজার
জাতীয় বাজেট
বিপিএল
শিক্ষা সময়
ভোটের হাওয়া
স্বাস্থ্য
ধর্ম
চাকরি
পশ্চিমবঙ্গ
ফুটবল বিশ্বকাপ
ভাইরাল
সংবাদ প্রতিনিধি
বিশ্বকাপ সংবাদ
Latest News
আপনিও লিখুন
ছবি ভিডিও টিভি
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
GoTop